• শুক্রবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:০৩ রাত

চিকিৎসকের হাতে ধর্ষণের শিকার রোগীর আত্মীয়া

  • প্রকাশিত ০৪:৪৩ বিকেল জুলাই ১৭, ২০১৮
mag-osmani-medical-college-hospital-1531758858416-1531823784173.jpg
সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ফাইল ফটো।

সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোগীর আত্মীয়া এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্ত শিক্ষানবিশ চিকিৎসক ডা: মাক্কাম আহমদ মাহী। কোতোয়ালি মডেল থানার এসি গোলাম সাদেক কাওসার দস্তগীর গ্রেফতারের বিষয়টি ঢাকা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেছেন।  

বাংলাদেশ পুলিশের এই অ্যাসিসটেন্ট কমিশনার জানিয়েছেন ঘটনার শিকার কিশোরীর বাড়ি শহরের সুবিদবাজার বনকালাপাড়া এলাকায়। তার খালা কয়েকদিন আগে হাসপাতালে আট নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছিলো। সে তার খালার সাথে দেখাশুনার জন্য এসেছিলো। শনিবার রাত আনুমানিক ৩টায় তাদের ওয়ার্ডে কোনো ডিউটি ডাক্তার না থাকায় পাশের ৭ নম্বর ওয়ার্ডে যায় মেয়েটি। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার মাহী তাকে নিজের রুমে নিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর ভুক্তভোগীকে সাথে সাথে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) নেয়া হয়। 

পরে মেয়েটি নিজেই কোতোয়ালি পুলিশ থানায় এই অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ মেয়েটির ডিএনএ নমুনা সহ ধর্ষণের যাবতীয় চিহ্নসমূহের আলামত সংগ্রহ করেছে। তবে মেডিকেল রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত মেয়েটির ধর্ষণের সত্যতা নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়। আর আগে থেকেই  মেয়েটির সাথে ওই অভিযুক্তের কোনো সম্পর্ক আছে কি না তাও তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। 

ওসমানী হাসপাতালের ডেপুটি ডিরেক্টর ডা: দেবোপদ রায় জানান, মাহী সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ৫১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। সোমবার বেলা ২টায় পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে যায়। 

ওসিসি’র ইনচার্জ এস আই শাহিন বলেন, মেয়েটির ডিএনএ নমুনা ও অন্যান্য আলামত নেবার পর সোমবার বেলা ৩টায় সে চলে গেছে। ফরেন্সিক ডাক্তাররা তাকে পরিক্ষা করে দেখেছেন।