• বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:৫৪ সন্ধ্যা

ঢাকায় আসছে পায়রা-রামপালের বিদ্যুৎ

  • প্রকাশিত ১১:৫৩ সকাল অক্টোবর ৮, ২০১৮
পাওয়ার স্টেশন
ছবি: সৌজন্যে।

"পায়রা ও রামপাল থেকে বিদ্যুৎ যোগ হয়ে এই সাবস্টেশনের আপগ্রেডশন হলে আমরা ঢাকা শহরের যেকোনো স্থানে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে পারবো"

রাজধানীতে বিদ্যুৎ ব্যবস্থাকে আরো উন্নত করার লক্ষ্যে পায়রা ও রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ এনে আমিনবাজারে বিদ্যমান ২৩০/১৩২ কেভি গ্রিড সাবস্টেশনকে ৪০০/২৩০ কেভিতে উন্নীত করতে যাচ্ছে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ (পিজিসিবি)। পিজিসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুম-আল-বেরুনিও আমিনবাজার গ্রিড সাবস্টেশনটিতে উন্নয়নের এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন"পায়রা ও রামপাল থেকে বিদ্যুৎ যোগ হয়ে এই সাবস্টেশনের আপগ্রেডশন হলে আমরা ঢাকা শহরের যেকোনো স্থানে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে পারবো"

এদিকে, পিজিসিবি সূত্রে জানা গেছে, পায়রার ১৩২০ মেগাওয়াটের কয়লাভিক্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র ও রামপালের ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র আগামী ২০২০ সালের মধ্যেই বিদ্যুৎ উপাদনে যাবে।

সম্প্রতি এই প্রকল্পে দক্ষিণ কোরিয়ার কোম্পানি হাইওসাং কর্পোরেশন এবং পিজিসিবির মধ্যে একটি চুক্তিও সাক্ষরিত হয়েছে। এই চুক্তি অনুসারে ১৬৪ কোটি টাকার বিনিময়ে আগামী দুই বছরের জন্য পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করবে হাইওসাং কর্পোরেশন। বাংলাদেশ সরকার এবং এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি) যৌথভাবে এ প্রকল্পে অর্থায়ন করবে।

পিজিসিবি কর্মকর্তরা জানিয়েছেন যে সরকার ও দাতা সংস্থার পাশাপাশি পিজিসিবি নিজেও এই প্রকল্প বাস্তবায়নে অর্থ ব্যয় করবে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) এবং ভারতের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন জাতীয় তাপবিদ্যুৎ কর্পোরেশন (এনটিপিসি) যৌথভাবে রামপালের কয়লাভিত্তিক বিদ্যুকেন্দ্রটি নির্মাণ করছে। অপরদিকে, সরকারি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান নর্থওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি এবং চীনের ন্যাশনাল মেশিনারি ইমপোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট কর্পোরেশন ২ বিলিয়ন ডলারে পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রটি তৈরি করেছে

সূত্র: ইউএনবি।