• সোমবার, অক্টোবর ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৩ রাত

হাঙ্গেরিতে পাঠানো হচ্ছে রাবেয়া-রোকাইয়াকে

  • প্রকাশিত ০৫:৫২ সন্ধ্যা জানুয়ারী ৪, ২০১৯
রাবেয়া রোকাইয়া
উন্নত চিকিৎসার জন্য হাঙ্গেরিতে পাঠানো হচ্ছে জোড়া মাথা নিয়ে জন্ম নেওয়া শিশু রাবেয়া-রোকাইয়াকে। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ ও হাঙ্গেরির যৌথ উদ্যোগে রাবেয়া-রোকাইয়ার চিকিৎসা হবে

পাবনায় জোড়া মাথা নিয়ে জন্ম নেওয়া শিশু রাবেয়া ও রোকাইয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তায় হাঙ্গেরিতে পাঠানো হচ্ছে। শুক্রবার (৪ জানুয়ারি) রাতে একটি ফ্লাইটে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের সহযোগী অধ্যাপক ডা. হোসাইন ইমাম ইমুর সঙ্গে হাঙ্গেরির উদ্দেশ্যে রওনা হবে তারা।

এদিন দুপুরে ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে রাবেয়া-রোকাইয়ার বাবা-মার হাতে স্বপরিবারে হাঙ্গেরি যাওয়ার বিমানের টিকেট তুলে দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. নাসিম।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের প্রধান সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন জানান, বাংলাদেশ ও হাঙ্গেরির যৌথ উদ্যোগে রাবেয়া-রোকাইয়ার চিকিৎসা হবে। সেখানে হাঙ্গেরি, জার্মানি ও বাংলাদেশের পাঁচটি দলের ২০ সদস্য কাজ করবেন।

জানা গেছে, এক বছর ধরে ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে মাথা জোড়া লাগানো শিশু দুটি। এর মধ্যে জার্মানি ও হাঙ্গেরির দুই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক শিশু দুটিকে দেখেন। মাথায় দুই দফা এনজিওগ্রামের মাধ্যমে তাদের মস্তিষ্কের প্রধান রক্তনালী আলাদা করেন ওই চিকিৎসকরা। এরপর শিশু দুটিকে হাঙ্গেরিতে নিয়ে গিয়ে যৌথ চিকিৎসা করাতে আগ্রহ প্রকাশ করেন তারা।

হাঙ্গেরিতে শিশু দুটির চিকিৎসা তত্ত্বাবধানের দায়িত্বে থাকবে জার্মানভিত্তিক ‘ফর বাংলাদেশ অর্গানাইজেশন’ নামের একটি সংগঠন।

প্রসঙ্গত, পাবনার চাটমোহর উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের আটলংকা গ্রামের স্কুলশিক্ষক রফিকুল ইসলাম ও তাসলিমা দম্পতির ঘরে জন্মগত ত্রুটি নিয়ে ২০১৬ সালের ১৬ জুন জন্ম নেয় রাবেয়া ও রোকাইয়া।

গত বছরের ২০ নভেম্বর থেকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছে তারা।