• বুধবার, জুন ২৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪১ দুপুর

আরও ২৫০ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে ফেরত পাঠাবে সৌদি আরব

  • প্রকাশিত ১২:০০ দুপুর জানুয়ারী ২১, ২০১৯
শুমাইসি কারাগার
শুমাইসি কারাগারে আটক রোহিঙ্গারা। ছবি: সৌজন্যে।

তাদের বেশিরভাগেরই সৌদি আরবে বসবাসের অনুমতি রয়েছে

আরও ২৫০ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর পরিকল্পনা করছে সৌদি আরব। রোহিঙ্গা অ্যাক্টিভিস্টদের সংগঠন 'ফ্রি রোহিঙ্গা কোয়ালিশন'-এর বরাতে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরা।  এই ২৫০ রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠাতে সক্ষম হলে চলতি দ্বিতীয়বারের মতো রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ পাঠাবে সৌদি আরব।

বাংলাদেশে পৌঁছার পর এই রোহিঙ্গাদের গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হতে পারে বলে আশঙ্কা করছে এই সংগঠনটি। এ ধরণের পরিস্থিতি এড়াতে সৌদি কর্তৃপক্ষের কাছে রোহিঙ্গাদের ফেরত না পাঠানোর আহ্বান জানিয়েছেন ফ্রি রোহিঙ্গা কোয়ালিশনের কর্মীরা।

সৌদি আরবে বসবাসরত রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠানোর বিষয়ে সংগঠনটির প্রচারণা সমন্বয়কারী নায় সান লুইন বলেন, "আরবে প্রায় ৩ লাখ রোহিঙ্গা বাস করছে। তাদের বেশিরভাগেরই বসবাসের অনুমতি রয়েছে। কিন্তু জেদ্দাহর শুমাইসি কারাগারে বন্দিদের সঙ্গে অপরাধীর মতো আচরণ করা হচ্ছে"।

তিনি জানান, "রবিবার (২০ জানুয়ারি) মধ্যরাতে কিংবা সোমবার (২১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় এসব রোহিঙ্গাদের বহনকারী ফ্লাইট ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দিতে পারে। অনেক রোহিঙ্গাই ভুয়া কাগজপত্র সংগ্রহ করে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত ও নেপালের মতো দেশের পাসপোর্ট নিয়ে সৌদি আরবে প্রবেশ করেছে। যখন এই রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে পৌঁছাবে তাদের কারাগারে পাঠানো হতে পারে"।

ফ্রি রোহিঙ্গা কোয়ালিশনের কর্মীদের সংগ্রহ করা একটি ভিডিও ফুটেজ থেকে জানা যায়, বাংলাদেশে পাঠানোর উদ্দেশ্যে রবিবার এসব রোহিঙ্গাদের জেদ্দাহ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত ৭ জানুয়ারি সৌদি আরব থেকে ১৩ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে পাঠানো হয়। ১৩ রোহিঙ্গাকে। বাংলাদেশে পৌছানোর পর তাদেরকে ইমিগ্রেশন পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়। 

প্রসঙ্গতঃ দক্ষিণ এশিয়ার বাইরে সৌদি আরবেই সবচেয়ে বেশি রোহিঙ্গা রয়েছে।