• বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:০০ বিকেল

পরীক্ষা দেয়া হলোনা প্রতারণার শিকার ৫১ শিক্ষার্থীর

  • প্রকাশিত ০১:১৯ দুপুর ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৯
এসএসসি পরীক্ষা
ফাইল ছবি: মাহমুদ হোসাইন অপু/ঢাকা ট্রিবিউন

এসএসসি নির্বাচনী পরীক্ষায় অকৃতকার্য  হওয়ায় ৫১ পরীক্ষার্থীকে প্রবেশপত্র দেয়ার কথা বলে সবার থেকে ৮ থেকে ১২ হাজার করে টাকা হাতিয়ে নিলেও প্রবেশপত্র পায়নি কেউই

নীলফামারীর সৈয়দপুরে উপজেলার সাতটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে এবারেরএসএসসি নির্বাচনী পরীক্ষায় অকৃতকার্য ৫১ পরীক্ষার্থীকে প্রবেশপত্র দেয়ার কথা বলে প্রত্যেকের কাছ থেকে ৮ থেকে ১২ হাজার করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে একটি প্রতিষ্ঠানের পরিচালকসহ দুই শিক্ষক। শুক্রবার (১ ফেব্রয়ারি) রাত সাড়ে ১১টার দিকে সৈয়দপুর পৌর শহরের হাতিখানা মহল্লায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। শনিবার (২ ফেব্রয়ারী) দুপুর পর্যন্ত আটককৃত দুই জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

প্রতারণার শিকার শিক্ষার্থী নাসির হোসেন বলেন, আমি সৈয়দপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র। এবারের এসএসসি পরীক্ষার্থীয় অংশ নেওয়ার কথা ছিল, কিন্তু টেষ্ট পরীক্ষায় অংশ নিয়ে অকৃতকার্য হওয়ায় এসএসসির ফরম পূরণ করতে পারিনি।

পরবর্তীতে বন্ধুবান্ধবদের মাধ্যমে খবর পেয়ে প্রজাপ্রতি স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক শাকিল আহমেদ বিশেষ ব্যবস্থায় অকৃতকার্যদের পরীক্ষায় অংশ গ্রহণের সুযোগে করে দিচ্ছেন। অন্যদের মতো আমি শাকিল আহমেদের সাথে দেখা করি। 

শাকিল আহমেদ আমাকে বলেন, ‘তুমি দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার নওখৈর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র হিসেবে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে। এজন্য ১২ হাজার টাকা দিতে হবে তোমারফরম পূরণের জন্য।আমি তাকে (শাকিল) ১০ হাজার টাকা দেই।’

নাসির আরো জানায়, আমার মতো নিবাচনী পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয় শহরের ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড উচ্চ বিদ্যালয়, কয়া গোলাহাট স্কুল এন্ড কলেজ, সৈয়দপুর আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, আল ফারুক একাডেমি, সানফ্লাওয়ার স্কুল এন্ড কলেজ, সৈয়দপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় এবং সৈয়দপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজসহ ৫০জন ছাত্র-ছাত্রী। তাদেরও একই প্রলোভন দিয়ে প্রত্যেকর কাছ থেকে ৮ থেকে ১২ হাজার করে টাকা হাতিয়ে নেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম গোলাম কিবরিয়া অভিযোগ পাওয়ার বিষটি নিশ্চিত করে ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন,‘ প্রতারণার শিকার ওই ছাত্র-ছাত্রীরা একটি অভিযোগপত্র দিলে বিষয়টি সৈয়দপুর থানা পুলিশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়।’

সৈয়দপুর থানার ওসি মো. শাহজাহান পাশা বলেন,‘ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে রাতেই প্রজাপ্রতি স্কুলের পরিচালক শাকিল আহমেদ এবং বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আমির হোসেনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে প্রয়োজনীয় আইনান্যুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে আটক শাকিল বলেন,‘অকৃতকার্য ওই ৫১ জনকে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার নওখৈর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ফরম পূরণ করানো হয়। কিন্তু শিক্ষা বোর্ড তা অনুমোদন না করায় তাদের প্রবেশ পত্র আসেনি। এজন্য আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি প্রত্যেকের টাকা ফেরত দিতে চেয়েছি।

আটককৃতরা হলো, পৌর শহরের হাতিখানা মহল্লাস্থ প্রজাপ্রতি স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মো. শাকিল আহমেদ এবং ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আমির হোসেন। তাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। 

শনিবার (২ ফেব্রয়ারি) এসএসসি পরীক্ষা শুরু হলে তারা প্রবেশপত্র না পাওয়ায় ৫১ জনই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে শাকিলের বাড়ি ঘেরাও করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাত সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই শিক্ষকদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে।