• বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:১০ বিকেল

পুরাতন প্রশ্নে এসএসসি পরীক্ষা নেয়ায় ২৬ শিক্ষককে অব্যাহতি

  • প্রকাশিত ০৪:৫০ বিকেল ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৯
প্রশ্নপত্র
প্রশ্নপত্রে লেখা ছিল ১০১৯ সালের সিলেবাস অনুযায়ী। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন।

২০১৮ সালের প্রশ্নপত্র ও ১০১৯ সাল সম্বলিত নৈর্ব্যেত্তিক প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নিয়েছেন তারা

মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার খাসেরহাট সৈয়দ আবুল হোসেন স্কুল এ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে এসএসসি পরীক্ষার বাংলা প্রথম পত্র পরীক্ষায় ২০১৮ সালের প্রশ্নপত্র ও ১০১৯ সাল সম্বলিত নৈর্ব্যেত্তিক প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেয়ায় ওই পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিবসহ ২৬জন শিক্ষককে অব্যহতি দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম।

রবিবার (৩ জানুয়ারি) পরীক্ষার্থীদের বিক্ষোভ এবং সড়ক অবরোধের প্রেক্ষিতে অন্য শিক্ষকদের দিয়ে বাংলা দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা নেয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, "এ ঘটনায় রবিবার সকালে ওই পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিবসহ ২৬জন শিক্ষককে অব্যহতি দেয়া হয়েছে। তারা আগামী কোন পরীক্ষায় দায়িত্ব পালন করতে পারবে না। পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।"

এর আগে চলমান এসএসসি পরীক্ষার বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষার দিন খাসেরহাট সৈয়দ আবুল হোসেন স্কুল এ্যান্ড কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রে বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থীকে ২০১৮ সালের এবং ১০১৯ সাল সম্বলিত নৈর্ব্যেত্তিক প্রশ্নপত্র দেওয়া হয়। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে পরীক্ষার্থীরা এই সমস্যার প্রতিবাদ করলেও পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে কোন প্রকার উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। 

পরে পরীক্ষা শেষে সকল শিক্ষার্থীরা একত্রে হয়ে কালকিনি-খাসেরহাট  প্রায় দুইঘন্টা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। পরবর্তীতে জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলামের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেয় শিক্ষার্থীরা।