• বুধবার, জুলাই ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৩৬ রাত

পরিবেশ মন্ত্রী: ৭১.৬৪% ইটভাটা উন্নত প্রযুক্তিতে রূপান্তর করা হয়েছে

  • প্রকাশিত ০৮:২৮ রাত ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৯
সংসদ অধিবেশন
সংসদ অধিবেশন। ফাইল ছবি

'এসব উন্নত প্রযুক্তির ইটভাটায় বায়ু দূষণসহ অন্যান্য পরিবেশ দূষণ তুলনামূলক কম হবে'

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, “ইতোমধ্যে দেশে বিদ্যমান ইটভাটার মধ্যে ৭১ দশমিক ৬৪ ভাগ ইটভাটাকে উন্নত প্রযুক্তিতে রূপান্তর করা হয়েছে”।

বৃহস্পতিবার সংসদে সরকারি দলের সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “এসব উন্নত প্রযুক্তির ইটভাটায় বায়ু দূষণসহ অন্যান্য পরিবেশ দূষণ তুলনামূলক কম হবে”।

মন্ত্রী বলেন, “ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) (সংশোধন) অধ্যাদেশ, ২০১৮’ আইন অনুযায়ী ইট ভাটায় ইট পোড়ানোর কাজে জ্বালানি হিসেবে জ্বালানি কাঠের ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও আইন অনুযায়ী ইটভাটা স্থাপন ও পরিচালনার ক্ষেত্রে উন্নত প্রযুক্তি সম্পন্ন, জ্বালানি সাশ্রয়ী এবং গ্রহণযোগ্য মাত্রায় বায়ু দূষণ হয় এমন পদ্ধতির ইটভাটা স্থাপনের বিধান করা হয়েছে”।

তিনি বলেন, “উন্নত প্রযুক্তির ইটভাটায় জ্বালানি হিসেবে জ্বালানি কাঠ ব্যবহারের সুযোগ নেই। আইনটি বাস্তবায়নে পরিবেশন অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসন কাজ করছে”।

মো. শাহাব উদ্দিন জানান, পরিবেশ অধিদপ্তরের ইটভাটায় সৃষ্ট বায়ু দূষণ ও অন্যান্য দূষণ নিয়ন্ত্রণে প্রচলিত পোড়া মাটির ইট উৎপাদন পর্যায়ক্রমে হ্রাস করে, বালু, সিমেন্ট ব্যবহার করে কমপ্রেসড ব্লক ইটের পদ্ধতিতে ইট তৈরীতে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এ ধরনের ব্লক ইটের প্রচলন করা গেলে ইটভাটায় জ্বালানি কাঠের ব্যবহার বন্ধ করাসহ সকল প্রকার পরিবেশ দূষণ রোধ করা সম্ভব হবে।