• সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৫:১৫ সন্ধ্যা

ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে বরিশালে আটক মাদ্রাসা শিক্ষক

  • প্রকাশিত ০৯:০৩ রাত ফেব্রুয়ারি ২২, ২০১৯
বরিশাল

বুধবার গভীর রাতে তাকে বরিশাল থেকে আটক করে র‍্যাব

বরগুনা সদর উপজেলার কেওড়াবুনিয়া এলাকার সাহেবের হাওলা রাফেজিয়া দাখিল মাদরাসার অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে নোট-গাইড দেয়ার কথা বলে রুমে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় বুধবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলা থেকে ঐ মাদ্রাসার শরীরচর্চা শিক্ষক সাইফুল ইসলামকে (৩০) গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৮)। 

বৃহস্পতিবার র‌্যাব-৮’র সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গ্রেফতার সাইফুল ইসলাম বরগুনা সদর উপজেলার ফুলঝুড়ি এলাকার ইব্রাহিম মাওলানার ছেলে এবং হাওলা রাফেজিয়া দাখিল মাদরাসার শরীরচর্চা বিষয়ের শিক্ষক।

র‌্যাব আরও জানায়, গত ২০ জানুয়ারি বরগুনা সদর উপজেলার সাহেবের হাওলা রাফেজিয়া দাখিল মাদরাসার ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ক্লাসে এলে শরীরচর্চা শিক্ষক সাইফুল ইসলাম তাকে গাইড বই দেয়ার কথা বলে মাদ্রাসা সংলগ্ন নিজের খালি বাড়িতে নিয়ে যান। 

এরপর খালি ঘরে দরজা বন্ধ করে ওই ছাত্রীর মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে গেলে ভুক্তভোগী ঐ ছাত্রী কোনক্রমে বাড়ি ফিরলে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে পরে শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

এ ব্যাপারে গত ২০ জানুয়ারি বরগুনা সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শিক্ষক সাইফুল ইসলামকে আসামী করে মামলা দায়ের করে ধর্ষিতার পরিবার।

তবে,  অভিযুক্ত মাদ্রাসা শিক্ষক সাইফুল ইসলাম আত্মগোপন করে বিভিন্ন সময়ে তার অবস্থান ও মোবাইল নম্বর পরিবর্তন করতে থাকেন। এ কারণে তাকে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় আটক করা হয়।  

একপর্যায়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা বুধবার গভীর রাতে বরিশালের বাকেরগঞ্জ থানা এলাকায় একটি চেকপোস্ট স্থাপন করে। এরপর র‍্যাবের চেকপোস্টের সামনে পড়ে যায় অভিযুক্ত সাইফুল। এসময় দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলেও র‍্যাব সাইফুলকে আটক করতে সক্ষম হয়। এরপর তাকে আদালতে হাজির করে আদালতের নির্দেশে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।