• শনিবার, আগস্ট ২৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪১ রাত

চকবাজার অগ্নিকাণ্ড: ওয়াহেদ ম্যানশনের মালিকের ২ ছেলের জামিন

  • প্রকাশিত ০৮:১৯ রাত মার্চ ১১, ২০১৯
চকবাজার অগ্নিকাণ্ড
চকবাজারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৭১ জনের মৃত্যু হয়। ছবি : মাহমুদ হাসান অপু/ ঢাকা ট্রিবিউন

তিন সপ্তাহ পর তাদেরকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত

চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় সেখানকার এক বাসিন্দার দায়েরকৃত মামলায় ওয়াহেদ ম্যানশনের মালিকের দুই ছেলে মো. হাসান ও সোহেল ওরফে শহীদকে তিন সপ্তাহের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

জামিনের মেয়াদ শেষে তাদেরকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

সোমবার বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

তবে হাইকোর্টের জামিন আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করার কথা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট জাহিদ সারওয়ার কাজল।

গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে চুড়িহাট্টার অগ্নিকাণ্ডে ৭১ জন নিহত হন। আহত হন অনেকে। নন্দকুমার দত্ত রোডের শেষ মাথায় চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদের পাশে ওয়াহিদ ম্যানশনের সামনে আগুনের সূত্রপাত হয়। এ আবাসিক ভবনটিতে রাসায়নিকের গুদাম থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় আসিফ নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা চকবাজার মডেল থানায় মামলা করেন। এ মামলায় হাইকোর্টে আত্মসমর্পণ করে জামিন চান হাসান ও সোহেল।

শুনানিতে তাদের আইনজীবী মোমতাজউদ্দীন আহমেদ মেহেদী ও শেখ ওবায়দুর রহমান বলেন, "এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে যে প্রাইভেট কারের সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়ে এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত। ফলে ভবন মালিক হিসেবে তাদের দায় কোথায়? এছাড়া এজাহারে ৬৫ ও ৬৬ নম্বর ভবনের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। অথচ তারা ওই নম্বরের কোনো ভবনের মালিক নন। তারা ৬৪ নম্বর ভবনের স্বত্ত্বাধিকারী। এ কারণে আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করতে পারেন।"

জামিনের বিরোধিতা করে বক্তব্য রাখেন জাহিদ সারওয়ার কাজল। শুনানি শেষে হাইকোর্ট তিন সপ্তাহের আগাম জামিন দেন। একইসঙ্গে তদন্তের স্বার্থে তদন্তকারী কর্মকর্তাদেরকে সহযোগিতা করতে দুই আসামিকে বলেছে আদালত।

অ্যাডভোকেট মেহেদী বলেন, "জামিনপ্রাপ্তরা ওয়াহেদ ম্যানশনের মালিকের ছেলে। তিন সপ্তাহ পর তাদেরকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলেছেন হাইকোর্ট।"