• রবিবার, মে ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৯ রাত

উপজেলা নির্বাচনে সংখ্যালঘু ও এজেন্টদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের নির্দেশ সিইসির

  • প্রকাশিত ০৮:৪৩ রাত মার্চ ১৪, ২০১৯
প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা
প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা। ফাইল ছবি

'কোন প্রার্থী ও তার এজেন্টকে যেন কেন্দ্র থেকে বাহির করার চেষ্টা না করা হয়'

নির্বাচনে সংখ্যালঘু ও প্রার্থীর এজেন্টদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার খান মো. নূরুল হুদা। বৃহস্পতিবার মৌলভীবাজারে জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এমন নির্দেশ দেন বলে ইউএনবির একটি খবরে উল্লেখ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, “নির্বাচনে সংখ্যালঘু ও প্রার্থীর এজেন্টরা যাতে বাধা-বিপত্তিতে না পড়ে সে বিষয়ে সংশ্লিষ্টরা গুরুত্ব দেবেন”।

জাতীয় নির্বাচনের পর স্থানীয় সরকারের এই নির্বাচনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে সিইসি বলেন, “নির্বাচন কেন্দ্রেই সাংবাদিক, পর্যবেক্ষক ও প্রার্থীদের প্রতিনিধির সামনে ভোট গণনা ও ফলাফল ঘোষণা করতে হবে”।

এসময় নূরুল হুদা আরো বলেন, “নির্বাচন কমিশন শুধু নির্বাচনের আয়োজন ও প্রেক্ষাপট তৈরী করে। কারা নির্বাচন করবেন, কারা করবেন না এটা সম্পূর্ণ তাদের স্বাধীনতা”।

“১৯৮২ সাল থেকে উপজেলা নির্বাচন হয়ে আসছে। এটি ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচন কমিশনের কিছু বিধি-বিধান থাকে। ভোট কেন্দ্রে প্রিজাইটিং অফিসার ভোট গ্রহণ করে থাকেন। কোন কারণে ভোট গ্রহণ করা সম্ভব না হলে প্রিজাইডিং অফিসার রিটার্নিং অফিসারকে জানাবেন”, যোগ করেন তিনি।

বক্তব্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উদ্দেশ্যে সিইসি বলেন, “নির্বাচন নিয়ে পক্ষপাতমূলক আচরণ করা যাবে না। সকল বাহিনী আইনশৃংখলা রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন। ভোটার ও প্রার্থীর নিরাপত্ত্বা নিশ্চিত করতে হবে। কোন প্রার্থী ও তার এজেন্টকে যেন কেন্দ্র থেকে বাহির করার চেষ্টা না করা হয়”।

ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক রোকন উদ্দিনের সভাপতিত্বে এ সভায় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আশরাফুর রহমান, জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকতা, গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তা, বিজিবি, আনসার কর্মকর্তাসহ জেলার সবকটি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।