• বুধবার, জুলাই ২৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৪ রাত

কুষ্টিয়ায় ৩ দিনব্যাপী লালন মেলা শুরু বুধবার

  • প্রকাশিত ০৪:৩৭ বিকেল মার্চ ১৮, ২০১৯
ফকির লালন শাহের মাজার
ফকির লালন শাহের মাজার। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন।

মেলা চলবে ২২ মার্চ পর্যন্ত

কুষ্টিয়ার কুমারখালি উপজেলার ছেঁউড়িয়ার লালন আখড়াবাড়িতে মরমী সাধক ফকির লালন সাঁইজির তিন দিনব্যাপী স্মরণোৎসব ও গ্রামীন মেলা আগামী বুধবার (২০মার্চ) থেকে শুরু হতে যাচ্ছে। দোল পুর্ণিমার রাতে লালন শাহের মাজার একাডেমী চত্বরে তিনদিন ব্যাপী স্মরণোৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে। 

এবারের আয়োজনে মরমী সাধক বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁইজির অমর বানী 'মনের গরল যাবে যখন, সুধাময় সব দেখবি তখন' প্রতিপাদ্যে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় লালন একাডেমীর আয়োজনে এই স্মরণোৎসব অনুষ্ঠিত হবে। বুধবার (২০মার্চ) সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিক ভাবে তিনদিন ব্যাপী স্মরণোৎসব ও গ্রামীন মেলা শুরু হয়ে চলবে ২২ মার্চ শুক্রবার পর্যন্ত।

এদিকে লালন স্মরণোৎসবকে ঘিরে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কয়েক স্তরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। প্রথম দিনে প্রধান অতিথি হিসাবে স্মরণোৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ডঃ তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, বীর বিক্রম। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি থাকবেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য মাহবুব উল আলম হানিফ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. আসলাম হোসেন।

স্মরণোৎসবের দ্বিতীয় দিন প্রধান অতিথি থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) আসনের সংসদ সদস্য আঃ কাঃ মঃ সরওয়ার জাহান বাদশা। স্মরণোৎসবের তৃতীয় দিন প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার (এসপি) এস এম তানভীর আরাফাত।

ইতোমধ্যেই অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। ভক্ত অনুসারীরা আগে থেকেই লালন আঁখড়ায় জায়গা করে নিচ্ছেন। অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে মাজার প্রাঙ্গণে বর্ণিল পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। কালিগঙ্গা নদীর তীরে বসছে হরেক রকম পণ্যের গ্রামীন মেলা।

লালন মাজারের প্রধান খাদেম ফকির মোহম্মদ আলী শাহ এবারের মেলা প্রসঙ্গে বলেন, "জাত পাত ভুলে দেশ বিদেশের হাজার হাজার ভক্ত অনুসারী এখন থেকেই আসতে শুরু করেছে ছেউড়িয়ায় লালন আখড়াবাড়ীতে"। 

কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. আসলাম হোসেন মেলার নিরাপত্তা ব্যবস্থা প্রসঙ্গে বলেন, "লালন স্মরণোৎসব ও গ্রামীন মেলাকে কেন্দ্র করে মাজার প্রাঙ্গন ও তার আশেপাশের এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। পুরো মাজার এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। জেলা পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা পুলিশ এর পাশাপাশি সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। সেই সাথে আমাদের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটগণ সেখানে দায়িত্বে থাকবে"।