• মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:২৪ রাত

সারাদেশে নৌ-পরিবহন শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

  • প্রকাশিত ০১:৩৭ দুপুর এপ্রিল ১৬, ২০১৯
সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল
সোমবার মধ্যরাত থেকে শুরু হওয়া এ ধর্মঘটের লঞ্চ না চলার কারণে ভোগান্তিতে পড়েছে নৌ-পথ ব্যবহারকারীরা। ফোকাস বাংলা

এ ধর্মঘটের কারণে সদরঘাট টার্মিনাল থেকে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যায়নি 

নৌপথে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও শ্রমিক নির্যাতন বন্ধসহ এগারো দফা দাবিতে সারাদেশে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট শুরু করেছে নৌ-পরিবহন শ্রমিকরা। 

সোমবার (১৬ এপ্রিল) মধ্যরাত অর্থাৎ মঙ্গলবার প্রথম প্রহর থেকে শুরু হওয়া এ ধর্মঘটের কারণে ভোগান্তিতে পড়েছে নৌ-পথ ব্যবহারকারীরা। বাংলাদেশ নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শাহ আলম ভূঁইয়া জানান, “সোমবার রাতে তাদের দাবি নিয়ে  নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠকের পরও কোনো ফল না পেয়ে তারা এ ধর্মঘট কর্মসূচির ঘোষণা দেন।” 

এদিকে নেতাদের ধর্মঘটের ঘোষণার পর সোমবার রাত ১২টা ০১ মিনিট থেকে সদরঘাট, খুলনা ও মংলা বন্দর থেকে যাত্রীবাহী ও মালামালবাহী সবধরনের নৌ-যান চলাচল বন্ধ রেখেছে শ্রমিকরা। 

তাদের অন্যান্য দাবির মধ্যে রয়েছে- কর্মস্থলে দুর্ঘটনায় নিহত শ্রমিকদের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়া, ২০১৬ সালের বেতন স্কেলের পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন, নৌযান শ্রমিকদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, ভারতগামী শ্রমিকদের ল্যান্ডিং পাশ, জাহাজে কর্মরত প্রত্যেক নৌ-শ্রমিককে মালিক কর্তৃক বিনামূল্যে খাবারের ব্যবস্থা করা, সমূদ্র ভাতা ও রাত্রীকালীন ভাতা প্রভৃতি। 

এদিকে এ ধর্মঘটের পর সদরঘাট টার্মিনাল থেকে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যায়নি বলে ইউএনবি’র কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি নিশ্চিত করেছেন। 

নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশনের খুলনা অঞ্চলের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন জানান, “খুলনা ও মংলা বন্দরেও সবধরনের নৌ-যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। পাশাপাশি তারা জাহাজ থেকে পণ্য উঠা-নামা করাও বন্ধ করে দিয়েছে।”