• বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:১২ রাত

ঐতিহাসিক মে দিবস আজ

  • প্রকাশিত ১১:০২ সকাল মে ১, ২০১৯
শ্রমিক
মাহমুদ হোসাইন অপু/ঢাকা ট্রিবিউন

১৮৮৯ সালের ১৪ জুলাই প্যারিসে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক শ্রমিক সমাবেশে ১ মে’কে আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়

শ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার নিয়ে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আজ বুধবার পালিত হচ্ছে ঐতিহাসিক মে দিবস।  

শ্রমঘণ্টা কমিয়ে দৈনিক ৮ ঘণ্টা করার দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোতে রাস্তায় নেমে আসা শ্রমিকদের ঐতিহাসিক আন্দোলনের স্মরণে প্রতি বছর মে দিবস বা আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস পালন করা হয়। বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের আজ সরকারি ছুটির দিন।

প্রসঙ্গত, ১৮৮৬ সালের ১ মে দৈনিক ১২ ঘণ্টার পরিবর্তে ৮ ঘণ্টা কাজের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোতে শ্রমিকরা ফুঁসে উঠেন। মে মার্কেটের কাছে তাদের বিক্ষোভে পুলিশ গুলিবর্ষণ করলে ১০ জন শ্রমিক নিহত হন। উত্তাল সেই আন্দোলনের মুখে কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের দাবি মেনে দিতে বাধ্য হয় এবং বিশ্বব্যাপী দৈনিক ৮ ঘণ্টা কাজের সময় চালু করা হয়।

১৮৮৯ সালের ১৪ জুলাইয়ে প্যারিসে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক শ্রমিক সমাবেশে ১ মে’কে আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। পরের বছর থেকে বিশ্বব্যাপী এ দিনটি পালিত হচ্ছে।

দিনটি উদযাপনে সরকার, বিভিন্ন ট্রেড ইউনিয়ন ও শ্রমিক সংগঠন আলোচনা, সমাবেশ ও মিছিলসহ দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি পালন করছে। শ্রমিকরা কাজের পরিবেশ, বেতন ও নিরাপত্তা উন্নয়নে সরকারসহ সংশ্লিষ্ট পক্ষকে চাপ সৃষ্টি করতে সভা-সমাবেশ পালন করছে।

এদিকে দেশের শ্রমজীবী মানুষদের অভিনন্দন এবং তাদের কল্যাণ কামনা করে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে সকল শ্রেণির শ্রমিককে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে আশা করেন, শ্রমিক ও মালিকপক্ষ উভয়ই তাদের মধ্যে ভালো সম্পর্ক বজায় রেখে উৎপাদন বৃদ্ধিতে আত্মনিয়োগ করবে।