• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৩১ রাত

এসএসসির ফল প্রকাশ, পাশের হার ৮২.২০%

  • প্রকাশিত ১২:১০ দুপুর মে ৬, ২০১৯
ছাত্রদের উল্লাস
এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর উচ্ছ্বসিত ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজের শিক্ষার্থীরা। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

পাশের হার বাড়লেও গতবারের তুলনায় উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা

প্রকাশিত হয়েছে এসএসসি এবং সমমানের পরীক্ষার ফলাফল। এ বছরের এসএসসি পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৮২.২০ শতাংশ। মোট ৮টি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ১৭ লাখ ৪৯ হাজার ১৬৫ শিক্ষার্থী পাস করেছে।

সোমবার সকাল ১১টা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আট শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে এসএসসির ফলাফলের সারসংক্ষেপ তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

ফলাফলের সারসংক্ষেপ থেকে জানা যায়, এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন। এরমধ্যে ১০ লাখ ৬৪ হাজার ৮৯২ জন ছাত্রী এবং ১০ লাখ ৭০ হাজার ৪৪১ জন ছাত্র।

এর মধ্যে ১৭ লাখ ৪৯ হাজার ১৬৫ শিক্ষার্থী পাস করেছে। পাসের হার ৮২.২০ শতাংশ যা গত বছরের তুলনায় বেশি। গত বছর পাসে হার ছিল ৭৭.৭৭%।

তবে, পাসের হার বৃদ্ধি পেলেও উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা। এ বছর জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৫ হাজার ৫৯৪ জন। মোট পরিক্ষার্থীর তুলনায় এবার ৪.৯৬% পরিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে, যেখানে গত বছর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১ লাখ ১০ হাজার ৬২৯ জন। মোট পরিক্ষার্থীর তুলনায় গত বছর ৫.৪৬% জিপিএ-৫ পেয়েছিল।

ঢাকা বোর্ডে ২৯ হাজার ৬৮৭ জন, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৭ হাজার ৩৯৩ জন, কুমিল্লায় ৮ হাজার ৭৬৪, দিনাজপুরে ৯ হাজার ২৩ জন, যশোরে ৯ হাজার ৯৪৮ জন, সিলেটে ২ হাজার ৭৫৭ জন, রাজশাহীতে ২২ হাজার ৭৯৫ জন, বরিশাল বোর্ডে ৪ হাজার ১৮৯জন, মাদ্রাসা ৬ হাজার ২৮৭ জন এবং কারিগরি বোর্ডে ৪ হাজার ৭৫১ জন পরিক্ষার্থী এ বছর জিপিএ-৫ পেয়েছে।  

এ বছর যশোর বোর্ডে ৯০.৮৮, ঢাকা বোর্ডে ৭৯.৬২, রাজশাহী বোর্ডে ৯১.৬৪, দিনাজপুর কোর্ডে ৮৪.১০, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৭৮.১১, সিলেট বোর্ডে ৭০.৮৩, বরিশাল বোর্ডে ৭৭.৪১, কুমিল্লা বোর্ডে ৮৭. ১৬, কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ৭২.২৪ এবং মাদ্রাসা বোর্ডে ৮৩.০৩ শতাংশ পরীক্ষার্থী পাস করেছে।

এ বছর শতভাগ পাস করেছে এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ২,৫৮৩ টি। গত বছর এই সংখ্যা ছিল ১,৫৭৪টি। অন্যদিকে ১০৭ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোনো শিক্ষার্থী পাস করতে পারেনি। গত বছর এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ১০৯ টি।

উল্লেখ্য, প্রতিবার ফল ঘোষণার দিন সকালে প্রধানমন্ত্রীর হাতে ফলের সারসংক্ষেপ তুলে দেওয়ার রেওয়াজ থাকলেও এবছর প্রধানমন্ত্রী দেশের বাইরে থাকায় শিক্ষামন্ত্রীর হাতে ফল তুলে শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লন্ডন থেকে ফোনে এবছর এসএসসি এবং সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের অভিনন্দন জানান।