• বৃহস্পতিবার, জুন ২৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৬ সকাল

ঠাকুরগাঁওয়ে একই রশিতে প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যা

  • প্রকাশিত ০৬:০৭ সন্ধ্যা মে ৯, ২০১৯
মৃত্যু
ছবি: প্রতীকী।

গভীর রাতে তাদের লাশ উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক, দুই পরিবার থেকে চলছিল বিয়ের আলোচনাও। কিন্তু ছেলের অভিভাবকরা মেনে না নেওয়ায় বিয়ে পর্যন্ত গড়ায়নি প্রেমের সম্পর্ক। চেষ্টা করা হয়েছিল অন্যত্র বিয়ে দিয়ে দু'জনকে আলাদা করে দেওয়ার। পরিবারের এমন 'হঠকারিতা' মেনে নিতে না পেরে একই রশিতে ঝুলে আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছে ঠাকুরগাঁওয়ের এক প্রেমিক যুগল। 

বুধবার (৮ মে) গভীর রাতে ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার কাশিপুর এলাকায় গোরস্থানের পাশে একটি আমগাছ থেকে দড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। 

ওই প্রেমিক যুগল- রাণীশংকৈল উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের ছয়ভাগিয়া গ্রামের কুণ্ঠ কুমার পালের মেয়ে ইচ্ছা রাণী পাল (২১) ও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার আমজানখোর ইউনিয়নের বেউরঝাড়ী নয়াপাড়া গ্রামের খই খোয়া পালের ছেলে সুনীল পাল (২৪)। 

স্বজনরা জানান, গত দু'দিন ধরে বাড়িতে ফেরেননি সুনীল। বুধবার রাতে রাণীশংকৈল থানার পুলিশ মুঠোফোনের মাধ্যমে তাদেরকে বিষয়টি জানায়। 

এদিকে, ইচ্ছার স্বজনদের অভিযোগ, সুনীলের সঙ্গে তাদের মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক তারা মেনে নিয়েছিলেন। কিন্তু ছেলের পরিবারের লোকজন বিষয়টি মেনে না নেওয়ার কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে। 

এ বিষয়ে রাণীশংকৈল থানার অফিসার ইনর্চাজ (তদন্ত) খায়রুল আলম ডন ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, বুধবার গভীর রাতে তাদের লাশ উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় রাণীশংকৈল থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুররহস্য উদঘাটন করা যাবে। 

ঘটনাটিকে দু'জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের স্বাধীনতা হরণ হিসেবে দেখছেন ঠাকুরগাঁওয়ের শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আবু বক্কর সিদ্দিক। অভিভাবক ও সমাজ আরও সচেতন হলে এমন মর্মান্তিক পরিস্থিতি এড়ানো সম্ভব হতো বলে মনে করেন তিনি।