• সোমবার, মে ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৩৬ রাত

খাগড়াছড়িতে ত্রিপুরা কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ

  • প্রকাশিত ০৫:০৯ সন্ধ্যা মে ১৪, ২০১৯
খাগড়াছড়ি ধর্ষন
নিহত কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। ঢাকা ট্রিবিউন

প্রতিবেশিরা বাইরে থেকে দরজা খুলে ঘরে ঢুকে বিছানার ওপর তার লাশ দেখতে পায়।

খাগড়াছড়ি সদরের বড়পাড়া এলাকায় এক ত্রিপুরা কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহত কিশোরীর নাম ধনিতা ত্রিপুরা (১৭)। সে বড়পাড়া এলাকার নল মোহন ত্রিপুরার ছোট মেয়ে। 

স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে মঙ্গলবার (১৪ মে) বিকেল ৩টায় পুলিশ নিহতের বাড়ি থেকে লাশ উদ্ধার করে। 

ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ভাইবোনছড়া ইউনিয়নের কম্বল ত্রিপুরা, রুমে ত্রিপুরা ও কিরণ ত্রিপুরা নামে তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

এ বিষয়ে বড়পাড়া গ্রামের বাসিন্দা বিনয় ত্রিপুরা বলেন, পূর্ব পরিচিতির সূত্রধরে অভিযুক্তরা গতরাতে ওই কিশোরীর বাড়িতে যায়। এ সময় অন্য কেউ বাড়িতে ছিল না। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ওই কিশোরীর কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে প্রতিবেশিরা বাইরে থেকে দরজা খুলে ঘরে ঢুকে বিছানার ওপর তার লাশ দেখতে পায়। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন তিন যুবককে স্থানীয়রা পুলিশে সোপর্দ করেছে।

খাগড়াপুর মহিলা সমিতির সভাপতি শেফালিকা ত্রিপুরা ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, ধর্ষকদের যথাপোযুক্ত বিচার না হওয়ায় ধর্ষণের ঘটনা দিনদিন বাড়ছে। ধনিতার ওপর পাশবিক নির্যাতন চালানো হয়েছে বলে শুনেছি। সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক দোষীদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(মিডিয়া) এমএম সালাহউদ্দিন জানান, লাশের সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়নাতদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিন যুবককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।