• বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:৩৭ দুপুর

শিক্ষিকাকে ধর্ষণের দায়ে প্রধান শিক্ষকের যাবজ্জীবন

  • প্রকাশিত ০২:৫২ দুপুর মে ২১, ২০১৯
ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি

কুষ্টিয়া শহরের বড়বাজার এলাকায় আল আমিন আবাসিক হোটেলে মামা-ভাগনি পরিচয়ে তারা দুটি কক্ষ ভাড়া নেন। 

কুষ্টিয়ায় শিক্ষিকাকে ধর্ষণের দায়ে একই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শরিফুল ইসলামকে (৩৫) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে ওই ব্যক্তিকে ১ লাখ টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়। 

আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কুষ্টিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মুন্সী মো. মশিয়ার রহমান এ রায় ঘোষণা করেন। 

রায় ঘোষণার সময় আসামি শরিফুল আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তিনি মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর উপজেলার ভবরপাড়া গ্রামের মৃত রহমান মোল্লার ছেলে। 

কুষ্টিয়া নারী ও শিশু আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি)   অ্যাডভোকেট আকরাম হোসেন দুলাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১৩ মে মাধ্যমিক স্কুল শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশ নিতে অভিযুক্ত শিক্ষক শরিফুল ইসলামের সঙ্গে ওই শিক্ষিকা কুষ্টিয়া যান। কুষ্টিয়া শহরের বড়বাজার এলাকায় আল আমিন আবাসিক হোটেলে মামা-ভাগনি পরিচয়ে তারা দুটি কক্ষ ভাড়া নেন। পরের দিন সকাল সাড়ে ৭টার দিকে শরিফুল ওই শিক্ষিকার কক্ষে ঢুকে মুখ চেপে ধরে তাকে ধর্ষণ করেন। এরপর অসুস্থ অবস্থায় ওই শিক্ষিকাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষিকা বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষক শরিফুল ইসলামকে আসামি করে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা করেন। পুলিশ ২০১৬ সালের ১ অক্টোবর আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত মঙ্গলবার এই রায় ঘোষণা করেন।