• বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:১০ বিকেল

'ধর্ষণের পর কিশোরীকে ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দেওয়া' পুলিশ সদস্য কারাগারে

  • প্রকাশিত ০৪:২৯ বিকেল মে ২১, ২০১৯
মোক্তার হোসেন। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন
মোক্তার হোসেন। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

নায়েক মোক্তার হোসেন শহরে তার ভাড়া বাসায় এক স্কুলছাত্রীকে রোববার সন্ধ্যায় ডেকে নেন

মাদারীপুর শহরে দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনায় পুলিশ লাইনসের অভিযুক্ত  নায়েক মোক্তার হোসেনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

আজ মঙ্গলবার সকালে মাদারীপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মোক্তার হোসেনকে হাজির করা হলে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠান।

এর আগে সোমবার রাতে মোক্তারকে গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার রাতের ওই স্কুলছাত্রীর মামা বাদী হয়ে মাদারীপুর সদর মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি ধর্ষণের মামলা করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর পুলিশ লাইনসে কর্মরত নায়েক মোক্তার হোসেন শহরে তার ভাড়া বাসায় এক স্কুলছাত্রীকে রোববার সন্ধ্যায় ডেকে নেন। এ সময় দরজা বন্ধ করে ওই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ শেষে মারধর করে। বিষয়টি স্থানীয়রা টের পেয়ে বাইরে থেকে মোক্তারের ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। পরে মোক্তার ওই স্কুলছাত্রীকে ঘরের পেছনের ভেন্টিলেটর দিয়ে ওই কিশোরীকে নিচে ফেলে দেন। এতে সে গুরুতর আহত হয় এবং পা ভেঙ্গে যায়। পরে স্থানীয়রা স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

মাদারীপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক বলেন, 'ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত ওই পুলিশ সদস্যকে আমরা নজরদারিতে রাখি। এমনকি ওই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের সত্যতা পেয়ে তাকে দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করা হয়। ওই দিনই ওই পুলিশ সদস্যকে পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়।'