• সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:২৪ রাত

'মাদক বিক্রেতার বাড়ি হোক গণশৌচাগার'

  • প্রকাশিত ০৩:৩৯ বিকেল মে ২৮, ২০১৯
'অপকর্ম রোধে অপকর্মের ব্যবহার, মাদক বিক্রেতার বাড়ি হোক গণশৌচাগার' এমন শিরোনামে নাটোর শহরের বিভিন্ন স্থানে বিলবোর্ড সাধারণ মানুষের দৃষ্টি কাড়ছে। ছবি : <strong>ঢাকা ট্রিবিউন</strong>
'অপকর্ম রোধে অপকর্মের ব্যবহার, মাদক বিক্রেতার বাড়ি হোক গণশৌচাগার' এমন শিরোনামে নাটোর শহরের বিভিন্ন স্থানে বিলবোর্ড সাধারণ মানুষের দৃষ্টি কাড়ছে। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

এসপি সাইফুল্লাহ আল মামুন জানান, নাটোরে মাদকের বিরুদ্ধে প্রায় দুই মাস আগে জোরালোভাবে কাজ শুরু হয়েছে।

'অপকর্ম রোধে অপকর্মের ব্যবহার, মাদক বিক্রেতার বাড়ি হোক গণশৌচাগার' এমন শিরোনামে নাটোর শহরের বিভিন্ন স্থানে বিলবোর্ড সাধারণ মানুষের দৃষ্টি কাড়ছে। নাটোর পুলিশের নির্দেশনায় এই বিলবোর্ডগুলো টাঙানো হয়েছে বলে জানা গেছে। 

সম্প্রতি নাটোর শহরের মাদ্রাসা মোড় এলাকায় এমন একটি বিলবোর্ড দেখা যায়। পর্যায়ক্রমে এই কার্যক্রম সিংড়া থানা এলাকায় সম্প্রসারিত হয়। চলতি সপ্তাহে গুরুদাসপুর উপজেলা এলাকায় বিলবোর্ড স্থাপন কাজ শুরু হয়।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাহারুল ইসলাম বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, 'পুলিশ সুপার (এসপি) স্যারের নির্দেশনা এবং উৎসাহে পুলিশসহ এলাকার সচেতন মহল উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ স্থানে এই বিলবোর্ড স্থাপনে কাজটি করছেন। এ কাজে সম্পৃক্ত হয়েছেন ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও মেম্বারসহ জনপ্রতিনিধিরা।'

এক প্রশ্নের জবাবে মোজাহারুল ইসলাম দাবি করেন, এ পর্যন্ত প্রায় ২০টি বিলবোর্ড স্থাপন করা হয়েছে। এ কাজে এগিয়ে আসছেন বিভিন্ন এনজিও, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষ। 

এসপি সাইফুল্লাহ আল মামুন জানান, নাটোরে মাদকের বিরুদ্ধে প্রায় দুই মাস আগে জোরালোভাবে কাজ শুরু হয়েছে। 'মাদক তাড়াই জীবন বাঁচাই', 'মাদকমুক্ত নাটোর চাই', 'খোলা জানালা'সহ বেশ কিছু সংগঠন মাদকের বিরুদ্ধে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। বিভিন্নস্থানে চলছে মাদকের বিরুদ্ধে প্রচারণা। তাদের এই কাজে অনুপ্রাণিত হয়ে নাটোরে 'মাদকের বিরুদ্ধে ঘৃণা দিবস' পালনের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। আগামী মাসে দিবসটি পালন করার প্রস্তুতি চলছে। 

এসপি জানান, দিবসের প্রচারণার অংশ হিসেবে প্রায় ২০ দিন আগে শহরের মাদ্রাসা মোড় এলাকায় এ ধরনের বোর্ড স্থাপন করা হয়। নাটোরবাসীর পক্ষ থেকে এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে দাবি করে তিনি জানান। 

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন 'খোলা জানালা'র সদস্য রনি জানান, মাদকের বিরুদ্ধে এমন বিলবোর্ড স্থাপন ও এ ধরনের উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। 

নাটোরের যুব সমাজকে বাঁচানোর না গেলে আগামী প্রজন্ম শেষ হয়ে যাবে এমন উদ্বেগের কথা জানিয়ে রনি দাবি করেন, সমাজের সাধারণ মানুষ হিসেবে এবং সংগঠক হিসেবে তিনি এই কাজের প্রশংসা করেন ও সমর্থন জানান।

জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এবং সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সদস্য অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক জানান, নাটোর থেকে মাদক নির্মূলে এ ধরনের উদ্যোগ অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করবে বলে তার ধারণা। এ ধরনের বিলবোর্ড মাদক বিক্রেতাদের নিরুৎসাহিত করবে, তাদের মনে ভীতির সঞ্চার করবে, পাশাপাশি মাদকসেবীদের ও বার্তা পৌঁছাবে।