• মঙ্গলবার, আগস্ট ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫০ রাত

বাবার প্রেমিকাকে মেরে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখলো ছেলে

  • প্রকাশিত ০৩:৪৮ বিকেল জুন ৩, ২০১৯
চুয়াডাঙ্গা

এরই জের ধরে গত ৪ দিন ধরে ওই নারী নিজের স্বামী-সন্তান ফেলে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেন মুকুলের বাড়িতে। এতে মুকুলের কোনো আপত্তি না থাকলেও বিষয়টি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেননি তার স্ত্রী ও ছেলে হাসান আলী।

নিজের স্বামী-সন্তান ফেলে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলায় পরকীয়া প্রেমিক মুকুলের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন এক গৃহবধূ। এতে মুকুলের কোনো আপত্তি না থাকলেও বাধ সেধেছে ছেলে হাসান। সে তার বাবার প্রেমিকাকে পিটিয়ে বেঁধে রাখেন গাছের সাথে। 

৩ জুন, সোমবার সকালে উপজেলার কলাবাড়ি গ্রামের মুকুলের বাড়িতেই এ ঘটনা ঘটে। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সোমবার দুপুরে মুকুল (৩৫) ও তার ছেলে হাসান আলী (১৬) কে আটক করেছে পুলিশ। 

আটক মুকুল উপজেলার কলাবাড়ি গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে এবং হাসান আটক  মুকুলের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মাদক ব্যবসার সূত্র ধরে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার এক ব্যক্তির সঙ্গে দামুড়হুদা উপজেলার কলাবাড়ি গ্রামের মুকুলের সখ্য ছিল। ওই ব্যক্তির বাড়িতে নিয়মিত যাতায়াত থাকার সুবাদে তার স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে ওঠে মুকুলের।  মুকুল বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সম্পর্কের এক পর্যায়ে টালবাহানা শুরু করে। 

এরই জের ধরে গত ৪ দিন ধরে ওই নারী নিজের স্বামী-সন্তান ফেলে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেন মুকুলের বাড়িতে। এতে মুকুলের কোনো আপত্তি না থাকলেও বিষয়টি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেনি তার স্ত্রী ও ছেলে হাসান আলী।

এক পর্যায়ে সোমবার সকালে ওই নারীকে  পিটিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয় এবং বাড়ির সামনের গাছের সাথে বেধে রাখে হাসান আলী । 

দামুড়হুদা থানার ওসি সুকুমার বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, “এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মুকুল ও তার ছেলে হাসান কে আটক করা হয়েছে।”