• শুক্রবার, জুলাই ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:৫২ রাত

ভাড়া নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে বাসের চাকায় পিষে হত্যার অভিযোগ

  • প্রকাশিত ০৭:৩০ রাত জুন ৯, ২০১৯
মৃত্যু
প্রতীকী ছবি

নিহতের স্ত্রীর দাবি, তার স্বামীকে ধাক্কা দিয়ে বাস থেকে ফেলে দেওয়া হয়

গাজীপুরের বাঘের বাজার এলাকায় ভাড়া নিয়ে দ্বন্দের জেরে এক যাত্রীকে চাকায় পিষ্ট করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে আলম এশিয়া পরিবহনের একটি বাসের চালক ও তার সহকারীদের বিরুদ্ধে।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বাঘের বাজারে এ ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন মাওনা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন। এ ঘটনায় নিহত সালাহ উদ্দিন আহমেদ (৩৫) বাঘের বাজার এলাকার বাসিন্দা ছিলেন।

নিহতের স্ত্রী পারুল আক্তারকে উদ্ধৃত করে পুলিশ জানায়, স্কটেক্স এ্যাপারেলস্ কারখানার গাড়িচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন নিহত সালাহ উদ্দিন। ঈদের ছুটি শেষে রবিবার আলম এশিয়া পরিবহনের একটি বাসে কর্মস্থলে ফিরছিলেন তিনি। পথিমধ্যে বাসের চালকের সহকারীদের সাথে ভাড়া নিয়ে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন সালাহ উদ্দিন। এর এক পর্যায়ে চালকের সহকারীরা তাকে বেধড়ক মারধর করে।

পরবর্তীতে সালাউদ্দিন মুঠোফোনে ঘটনাটি তার স্বজনদের জানান। এরই মধ্যে বাসটি তার গন্তব্য বাঘের বাজারে পৌঁছালে দ্রুত নেমে যেয়ে বাসটিকে আটকানোর চেষ্টা চালান তিনি। এসময় ওই বাসের চালক তাকে চাকায় পিষ্ট করলে ঘটনাস্থলেই মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

তবে, সালাহ উদ্দিনকে অভিযুক্তরা ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বলে দাবি করেছেন নিহতের স্ত্রী পারুল আক্তার। তিনি বলেন, "আমার স্বামী বাস থেকে নামতে গেলে তাকে বাধা দেয়া হয়। এরপর এখান থেকে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দুরে নিয়ে তাকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়া হয়"।

এ প্রসঙ্গে মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "জয়দেবপুর থানা পুলিশের সহায়তায় গাড়িটি আটক করা হয়। তবে চালক ও তার সহকারীরা পালিয়ে যাওয়ায় তাদের এখনো আটক করা যায়নি। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।