• শুক্রবার, জুলাই ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:৫২ রাত

রানী ভবানীর বাড়ি এখন পাখির অভয়াশ্রম

  • প্রকাশিত ০৬:৪৪ সন্ধ্যা জুন ১৬, ২০১৯
রানী ভবানী
নাটোরে অবস্থিত রানী ভবানীর প্রাসাদ। ছবি: সংগৃহীত

জীববৈচিত্র রক্ষা করে আমাদের সুন্দর দেশকে বাসযোগ্য রাখতে পাখিদের রক্ষা করতে হবে। এসব অভয়াশ্রমে পাখিদের বিচরণের ও খাদ্যের জন্যে উপযোগী দেশীয় ফলের গাছ রোপন ও পরিচর্যা করা হচ্ছে।

নাটোর সদর উপজেলার রানী ভবানী রাজবাড়িকে পাখির অভয়াশ্রম ঘোষণা করা হয়েছে।

১৫ জুন, শনিবার পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার এই অভয়াশ্রম উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি একটি হরিতকি গাছের চারা রোপন করেন।

পাখির অভয়াশ্রম উদ্বোধনকালে কবির বিন আনোয়ার বলেন, “জীববৈচিত্র রক্ষা করে আমাদের সুন্দর দেশকে বাসযোগ্য রাখতে পাখিদের রক্ষা করতে হবে। এসব অভয়াশ্রমে পাখিদের বিচরণের ও খাদ্যের জন্যে উপযোগী দেশীয় ফলের গাছ রোপন ও পরিচর্যা করা হচ্ছে।”

পক্ষিকূলের আশ্রয়স্থল নির্মাণ প্রকল্পের সমন্বয়কারী যশোধন প্রামানিক বলেন, “নাটোর সদর উপজেলার হালতি বিল, চলনবিল এলাকায় সিংড়া উপজেলার ডাহিয়া এবং বড়াইগ্রাম উপজেলার চিনিডাঙ্গার বিলে আরো তিনটি পাখির অভয়াশ্রম তৈরির প্রস্তুতি চলছে।

এরআগে গতবছরে নাটোর সদরে উত্তরা গণভবনের অভ্যন্তরে ও বাইরে দু’টি পাখির অভয়াশ্রম উদ্বোধন করা হয়।”

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে নাটোরের জেলা প্রশাসক মো.শাহরিয়াজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।