• শনিবার, নভেম্বর ১৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩২ রাত

কক্সবাজারে বন্দুকযুদ্ধে নিহত রাশেদুল বান্দরবান ছাত্রলীগের নেতা?

  • প্রকাশিত ০৯:৫৩ রাত জুন ১৬, ২০১৯
বান্দরবান
বান্দরবানের নাইক্ষ‌্যংছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের নবনির্বাচিত দপ্তর সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম সৌরভ। ছবি: সংগৃহীত

র‌্যাবের দাবি, বন্ধুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল থেকে এক লাখ ৪০ হাজার ইয়াবা, ৪টি এলজি ও ২১ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

কক্সবাজারের টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৩ জনের একজন বান্দরবানের নাইক্ষ‌্যংছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের নবনির্বাচিত দপ্তর সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম সৌরভ বলে জানিছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলা ছাত্রলীগের একাধিক নেতা। 

১৬ জুন, রবিবার ভোররাতে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের ঢালা এলাকায় ওই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে বলে দাবি করে র‌্যাব। র‌্যাবের দাবি, বন্ধুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল থেকে এক লাখ ৪০ হাজার ইয়াবা, ৪টি এলজি ও ২১ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। 

নিহতরা হলেন, নাইক্ষ‌্যংছড়ি সদরের রূপনগর এলাকার মো. ইউনূছের ছেলে রাশেদুল ইসলাম সৌরভ (২২)। নিহত সৌরভ নাইক্ষ‌্য‌ংছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটির উপদপ্তর সম্পাদক। এ ছাড়া বন্ধুকযুদ্ধে নিহত অপর দুইজন হলেন, কক্সবাজার পৌরসভার চৌধুরী পাড়ার গবি সোলতানের ছেলে দিল মোহাম্মদ (৪২), ও চট্টগ্রামের আমিরাবাদের মাস্টারহাট এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে শহিদুল ইসলাম (৪২)। 

কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার আজিম আহমেদ বলেন, “ইয়াবার চালান উদ্ধার করতে গেলে র‌্যাবের উপর গুলিবর্ষণ করে মাদক ব্যবসায়ীরা। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে মাদক ও অস্ত্রসহ তিনজনের মরদেহ পাওয়া যায়। এ সময় জাহাঙ্গীর ও সোহেল নামে র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হয়।”

তিনি আরো বলেন, “নিহত তিনজনের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।”

এদিকে নিহত রাশেদুল ইসলাম সৌরভ বান্দরবানের নাইক্ষ‌্যংছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের নবনির্বাচিত দপ্তর সম্পাদক  বলে জানিছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলা ছাত্রলীগের একাধিক নেতা। 

তবে এ বিষয়ে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বদুর উল্লাহ ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “আমরা এই বিষয়ে শুনেছি। তবে এখনও নিশ্চত হতে পারিনি। তবে রাশেদুল ইসলাম সৌরভের বাবা কান্নাকাটি করে টেকনাফের পথে রওনা হয়েছেন বলে শুনেছি।”