• সোমবার, অক্টোবর ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৩ রাত

নুসরাত হত্যা: আসামি আওয়ামী লীগ নেতার মুক্তির দাবিতে দেয়ালে দেয়ালে পোস্টার

  • প্রকাশিত ০৮:৩৬ রাত জুন ১৮, ২০১৯
পোস্টার
নুসরাত হত্যা মামলার অন্যতম আসামি আওয়ামী লীগ নেতা রুহুল আমিনের মুক্তির দাবিতে এই রকম পোস্টারে ছেয়ে গেছে উপজেলার সর্বত্র। ছবি: ইউএনবি

তবে এই পোস্টারিং সম্পর্কে কিছু জানেন না বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতারা

সোনাগাজীর মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার অন্যতম আসামি কারাবন্দী সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. রুহুল আমিনের মুক্তির দাবিতে ব্যাপক পোস্টারিং করা হয়েছে।

উপজেলার আনাচে কানাচে তার মুক্তির দাবি সম্বলিত পোস্টারে ছেয়ে গেছে। পোস্টারগুলো উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রধান কার্যালয়েও সাঁটানো হয়েছে। সোমবার রাত থেকে এসব পোস্টার লাগানো হয়েছে।

পোস্টারে উল্লেখ করা হয়েছে, "সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জনাব রুহুল আমিন ভাই এর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তি চাই।"

সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক দীন মোহাম্মদ বলেন, "প্রচারে সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগ, সকল সহযোগী ও অঙ্গ সংগঠনের নাম উল্লেখ করা হলেও এর সাথে সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাদের কোনো সম্পর্ক নেই।"

উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক মফিজুল হক দাবি করেন, "এই পোস্টারিংয়ের সাথে সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের কোনো সম্পর্ক নেই। দলীয় হাই কমান্ড থেকে আমাকে কিছু জানানো হয়নি"।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকন জানান, রাতের আঁধারে কে বা কারা পোস্টার লাগিয়েছে তিনি জানেন না।

সোনাগাজী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আজিজুল হক হিরন দাবি করেন, "পোস্টারিংয়ের সাথে যুবলীগের কেউ জড়িত নয়। সাংগঠনিকভাবে কাউকে এসব পোস্টারিংয়ের দায়িত্বও দেয়া হয়নি। এটা রুহুল আমিন সাহেবের শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাজ"।

উল্লেখ্য, নুসরাত হত্যা মামলায় গত ২৯ মে রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে চার্জশিট প্রদানের পর ৩০ মে অধ্যাপক মফিজুল হককে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হয়।

রুহুল আমিন সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার সহ-সভাপতি ছিলেন ও অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার সহযোগী।