• সোমবার, অক্টোবর ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:১৮ দুপুর

ঢাবি ছাত্রীকে অস্ত্রের মুখে ধর্ষণ ও ভিডিওধারণ, যুবক গ্রেপ্তার

  • প্রকাশিত ০৫:৪৮ সন্ধ্যা জুন ১৯, ২০১৯
ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি

পরের দিন ওই ছাত্রী বাড়িতে আসার পর রাজু তাকে মোবাইলের মাধ্যমে হুমকি দিয়ে জানান, এই ব্যাপারে কাউকে কিছু বললে সে ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেবেন। মানসম্মানের ভয়ে ওই ছাত্রী তখন এসব ঘটনা কাউকে বলেননি।

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে অস্ত্রের মুখে জোরপূর্বক ধর্ষণের ভিডিওধারণ ও ব্লাকমেইল করে ল্যাপটপসহ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে আব্দুল হাই ওরফে রাজু (২৬) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

১৯ জুন,মঙ্গলবার সকালে কালিগঞ্জের কুশুলিয়া ইউনিয়নের বাজার রহিমপুর এলাকা থেকে রাজুকে গ্রেপ্তার করা হয়। আটক রাজু রহিমপুর এলাকার শেখ রওশান আলীর ছেলে।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ৫ মাস আগে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ওই ছাত্রীর বন্ধু একই উপজেলার কলিযোগা গ্রামের সিদ্দিক ঢালীর ছেলে রোকনুজ্জামান (২৫) ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। অসুস্থ বন্ধুকে দেখতে গেলে আব্দুল হাই ওরফে রাজুর সাথে ওই ছাত্রীর পরিচয় হয়। পরবর্তী সময়ে রাজু ওই ছাত্রীর মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে তার সাথে কথা বলতে শুরু করে এবং তাদের অসুস্থ বন্ধু রোকনুজ্জামানের চিকিৎসার জন্য বিভিন্ন ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে আর্থিক সাহায্য গ্রহণ করতে থাকেন। এভাবেই উভয়ের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

এরইমধ্যে চলতি বছরের ১৪ এপ্রিল ওই ছাত্রী ঢাকা থেকে বাস যোগে বাড়ি যাওয়ার সময় পথিমধ্যে রাজু ওই ছাত্রীকে বাস থেকে নামিয়ে নলতা এলাকায় তার এক বোনের বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে রাজু ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিলে ছাত্রী রাজি না হওয়ায় তাকে মারপিট করে আটকে রাখা হয়। একপর্যায়ে রাত ১০টার দিকে রাজু ধারালো চাকু দেখিয়ে হত্যার হুমকি দিয়ে ধর্ষণ করে এবং মোবাইলে ভিডিও ধারণ করেন।

পরের দিন ওই ছাত্রী বাড়িতে আসার পর রাজু তাকে মোবাইলের মাধ্যমে হুমকি দিয়ে জানান, এই ব্যাপারে কাউকে কিছু বললে সে ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেবেন। মানসম্মানের ভয়ে ওই ছাত্রী তখন এসব ঘটনা কাউকে বলেননি।

পরবর্তী সময়ে রাজু ধারণকৃত ভিডিওচিত্র দিয়ে ব্লাকমেইল শুরু করেন। রাজু ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়া ভয় দেখিয়ে এ পর্যন্ত এক লক্ষ সত্তর হাজার টাকা এবং একটি ল্যাপটপ হাতিয়ে নিয়েছেন বলে এজাহার সূত্রে জানা যায়।

সর্বশেষ গত ২২ মে রাত সাড়ে ৯টার দিকে রাজু তার ব্যবহৃত মোবাইল থেকে ওই ছাত্রীর ফোন নম্বরে ফোন করে আরও দুই লক্ষ টাকা দাবি করেন। অবশেষে ওই ছাত্রী বিষয়টি তার পরিবারকে জানিয়ে গত ১৬ জুন, সোমবার থানায় এজাহার দায়ের করেন।

এ ঘটনার সতত্য স্বীকার করে থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এস.এম আজিজুর রহমান বলেন, “এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। পুলিশ ইতিমধ্যে অভিযুক্ত রাজুকে গ্রেপ্তার করে তার কাছ থেকে একটি ল্যাপটপটি উদ্ধার করেছে।” 

তিনি আরো জানান, মঙ্গলবার আসামিকে আদালতের মাধ্যমে জেলা হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।