• শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৪ রাত

চট্টগ্রামে মাইক্রোবাসের কমপ্রেসর বিস্ফোরণে ১৮ যাত্রী দগ্ধ

  • প্রকাশিত ১০:৩২ সকাল জুন ২৬, ২০১৯
চট্টগ্রামে মাইক্রোবাসের কমপ্রেসর বিস্ফোরণ
চট্টগ্রামে মাইক্রোবাসের কমপ্রেসর বিস্ফোরণে দগ্ধ যাত্রীর একজন। ছবি: ইউএনবি

“মাইক্রোবাসের গ্যাস সিলিন্ডার ঠিক ছিল, এসির কমপ্রেসর বিস্ফোরিত হয়ে গাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে”

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়ায় চলন্ত মাইক্রোবাসে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের (এসি) কমপ্রেসর বিস্ফোরণে শিশুসহ ১৮ জন যাত্রী অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৫ জুন) রাত পৌনে ১১টার দিকে পটিয়া পৌরসভার ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- মো. রুবেল (২২), মো. মামুন (১৯), মো. আব্দুল আলম (২০), মো. ইদ্রিস (৫০), সাইদুর রহমান (১৬), বেলাল হোসেন (২২), মো. সোহাগ (১৩), মো. হেলাল (২২), মো. আরিফ (১৩), মো. জহির (১৭), তৌহিদুল ইসলাম (২৮), আবুল কালাম (৪৫), আরিফ হোসেন (৩ বছর ৬ মাস), দেলোয়ার হোসেন (২০), জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) ও মো. সাদেক (১৫)। অন্য দুজনের পরিচয় জানা যায়নি।

আহতদের মধ্যে ১৬ জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (চমেক) বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বোরহান উদ্দিন বলেন, “চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারগামী মাইক্রোবাসের এসির কমপ্রেসরে আগুন ধরে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।”

তিনি বলেন, “মাইক্রোবাসের গ্যাস সিলিন্ডার ঠিক ছিল। এসির কমপ্রেসর বিস্ফোরিত হয়ে গাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। গাড়িটি থানায় নেয়া হয়েছে।”

স্থানীয় সূত্র জানায়, চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে এক প্রবাসীকে বিদায় দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে পটিয়া পৌরসভা সদর এলাকায় চলন্ত গাড়িতে হঠাৎ বিস্ফোরণের পরপরই আগুন ধরে যায়। 

পটিয়া হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক সৈয়দ রিদুয়ানুর হক জানান, “আহত ১৮ জনের মধ্যে তিনজন শিশু রয়েছে। আগুন পুড়ে যাওয়ার কারণে তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।”

এদিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত এএসআই আলাউদ্দিন বলেন, “পটিয়া থেকে অগ্নিদগ্ধ ১৬ জনকে আনা হয়েছে। তাদের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হচ্ছে। আগুনে তাদের প্রত্যেকের শরীর ও মুখমণ্ডল ঝলসে গেছে।”