• সোমবার, অক্টোবর ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:১৮ দুপুর

বাঁশ ও কলাগাছ দিয়ে বানানো সেই কালভার্টের নেপথ্যে

  • প্রকাশিত ১০:৪১ সকাল জুলাই ৩, ২০১৯
ফেনী কালভার্ট
ফেনীর আলোচিত সেই কালভার্ট ঢাকা ট্রিবিউন

মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে কার্লভার্টটি দেখতে যান সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা

ফেনী সদর থানার শর্শদী ইউনিয়নে বাঁশ ও কলাগাছ দিয়ে নির্মিত একটি কালভার্টের ছবি সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। বিষয়টি নজরে এলে মঙ্গলবার (০২ জুলাই) দুপুরে সরেজমিনে কালভার্টটি দেখতে যান সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাসরিন সুলতানা। 

এসময় তিনি শ্রমিকদের দিয়ে ড্রেনের পাশের অংশ ভেঙে সেখানে সঠিক নিয়মে রড, সিমেন্ট, কংক্রিট ও বালু ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে বলে দেখতে পান। ঘটনাস্থলে স্থানীয় গণ্যমান্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

আলোচিত কালভার্টটি পরিদর্শন করে ইউএনও সাংবাদিকদের জানান, এক সমাজসেবী ব্যক্তির উদ্যোগে এই ‘ইউ ড্রেনটি’ নির্মাণ করা হয়েছে। এটি ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ কিংবা সরকারি কোনো প্রকল্পের কাজ নয়। ড্রেনটি ভাঙা দেখে ওই ব্যক্তি নিজ অর্থায়নে রড, সিমেন্ট, কংক্রিট ও বালু দিয়ে এটি নির্মাণ করেছেন। সব খরচও তিনিই দিয়েছেন। আর এসব ছোটখাটো কাজের জন্য সাধারণত এধরনের সেন্টারিং ব্যবহার করা হয়। ড্রেন জমাট বেধে গেলে নিচে বাঁশের সেন্টারিং খুলে ফেলা হবে। অহেতুক কিছু অসাধু ব্যক্তি এই ইউ ড্রেনটি নিয়ে না বুঝে, না দেখেই ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন। 

তিনি আরও বলেন, ‘‘ইউ ড্রেনটিতে বাঁশ-কলাগাছ নয়, রড ব্যবহার করা হয়েছে।’’ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য ও ছবি দিয়ে কে বা কারা অপপ্রচার চালিয়েছে। তিনি এ অপপ্রচার ও গুজব থেকে দূরে থাকার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান ।

অপরদিকে, একই দিন বিকেলে এবিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে শর্শদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জানে আলম ভূঞা মিথ্যা ছবি দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের নামে অপপ্রচারের নিন্দা জানান।