• শনিবার, আগস্ট ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৩৮ রাত

ফেনসিডিল সেবনের কথা বলে ডেকে এনে বন্ধুকে হত্যা

  • প্রকাশিত ০৪:৪৩ বিকেল আগস্ট ৩, ২০১৯
আটক
বন্ধুকে হত্যার দায়ে আটক ৫ যুবক। ঢাকা ট্রিবিউন

নিহত নূর জামাল নানা ধরণের অপরাধমূলক কার্যক্রমের সাথে জড়িত ছিলেন

যশোরের শার্শা উপজেলায় ফেনসিডিল সেবনের কথা বলে বন্ধুকে ডেকে এনে হত্যার অভিযোগে ৫ যুবককে আটক করেছে পুলিশ। নিহত নূর জামাল (২৪) যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার কৃষ্ণনগর গ্রামের নজর আলীর ছেলে।

শুক্রবার বেলা তিনটায় নিজ কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) সালাউদ্দিন সিকদার এসব তথ্য জানান। আটক ৫ ব্যক্তি হলেন- তাজরিয়ান মাহমুদ তুর্য্য (১৯),তাহজীবুল বিশ্বাস অক্ষর (২০), সাজ্জাদুল ইসলাম (১৯), আবু জাফর (১৯) এবং শাহিন হোসেন (২০)।

প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, নিহত নূর জামাল সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার মাঝিপাড়ায় মায়ের সাথে থাকতেন। তিনি নিয়মিত মাদক সেবনের জন্য যশোরের ঝিকরগাছায় যেতেন। আটক পাঁচ যুবক নূর জামালের সাথে মাদক সেবন করতেন। এক পর্যায়ে তুচ্ছ কারণে নূর জামালের উপর ক্ষুব্ধ হন বন্ধু তুর্য্য। পরে সে তার বন্ধুদের সাথে পরামর্শ করে ফেনসিডিল সেবনের কথা বলে গত ৩০ জুলাই সাতক্ষীরা থেকে নূর জামালকে ডেকে নেন। পরে মোটরসাইকেলে করে মাদক সেবনের জন্য বেনাপোল যাওয়ার পথে শার্শা উপজেলার গোগার কালিয়ানি গ্রামের একটি ফাঁকা জমিতে গিয়ে নূর জামালকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেন তুর্য্য ও স্বাক্ষর।

পুলিশ আরো জানায়, নিহতের পকেট থেকে তার মোবাইলফোন ও হত্যার কাজে ব্যবহৃত দু'টি চাকু উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তার নম্বর ট্রাকিং করে তুর্য্য, স্বাক্ষর ও সাজ্জাদুলের অবস্থান জানতে পারে। গত ৩১ জুলাই ঝিকরগাছা রেলস্টেশন এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। পরে তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক জাফর ও শাহিনকে আটক করা হয়।প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা হত্যার সাথে জড়িত থাকার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। তাদের সাথে আল-আমিন নামে আরেকজন ছিল, সে পলাতক রয়েছে।

প্রেস ব্রিফিংয়ে আরও জানানো হয়, নিহত নূর জামাল নানা ধরণের অপরাধমূলক কার্যক্রমের সাথে জড়িত ছিলেন। তার নামে ঢাকার দারুস সালাম থানায় মামলা রয়েছে বলেও পুলিশ জানতে পেরেছে।