• শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:৫৪ দুপুর

মশা নিধনের ওষুধ স্প্রে করার পর ১২ শিক্ষার্থী অসুস্থ

  • প্রকাশিত ০৮:৪২ রাত আগস্ট ৩, ২০১৯
চিকিৎসা
মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মশা মারার ওষুধে স্প্রে করায় অসুস্থ হয়ে পড়া এক শিক্ষার্থী। ঢাকা ট্রিবিউন

অসুস্থ শিক্ষার্থীদের মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়

মৌলভীবাজারে একটি বিদ্যালয়ে মশানিধনের ঔষধ স্প্রে করার পর ১২ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। 

শনিবার (৪ আগস্ট) বিকেল তিনটার দিকে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার দি ফ্লাওয়ার্স কেজি এন্ড হাই স্কুলের এই ঘটনা ঘটে।

মৌলভীবাজারের সির্ভিল সার্জন মো.শাহজাহান কবির ঢাকা ট্রিবিউনকে এতথ্য নিশ্চিত করেন। অসুস্থ শিক্ষার্থীদের মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

জানা যায়, শনিবার বেলা পৌনে তিনটার দিকে দি ফ্লাওয়ার্স কেজি এন্ড হাই স্কুলে পৌরসভার পক্ষ থেকে মশার ঔষধ স্প্রে করা হয়। এর কিছুক্ষণ পর বিদ্যালয়ের কয়েকজন ১২জন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাদের মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অসুস্থ হয়ে পড়া শিক্ষার্থী এমি'র অভিভাবক মান্নান আহমদ বলেন, "মশক নিধন হোক সেটা আমরা চাই। কিন্তু আমাদের সন্তানদের ক্ষতি করে যেন মশক নিধন না করা হয়। ওষুধ ছিটানোর সময় তাদের আরও সতর্কতা অবলম্বন করা দরকার ছিল।"

স্কুলের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম ঘটনা প্রসঙ্গে ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "মশা মারার ওষুধ স্প্রে করার কিছুক্ষণ পরেই শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়ে পড়ে। আমরা তাদের হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দিয়েছি। বিকেলে তাদেরকে চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।"

মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. রত্নদ্বীপ বিশ্বাস জানান, অসুস্থ শিক্ষার্থীদের অধিকাংশকেই প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তবে এখনও ৪ জন শিক্ষার্থী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। 

এবিষয়ে জানতে চাইলে মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মো. ফজলুর রহমান বলেন, "আমি হাসপাতালে অসুস্থ শিক্ষার্থীদের দেখে এসেছি। স্কুল চলাকালে আর কোনো বিদ্যালয়ে স্প্রে করা হবে না।"

এপ্রসঙ্গে মৌলভীবাজারের সির্ভিল সার্জন মো.শাহজাহান কবির ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়ে অসুস্থ শিক্ষার্থীকে সন্ধ্যার দিকে ছেড়ে দিয়েছি। তারা সবাই আশঙ্কামুক্ত।"