• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:১০ রাত

কোরবানির মহিষ ধরতে গিয়ে আহত ১১, গুলি, তুলকালাম!

  • প্রকাশিত ০২:১৭ দুপুর আগস্ট ১৩, ২০১৯
মহিষ
সংগৃহীত

কোরবানির জন্য প্রস্তুতির সময় লাফিয়ে ওঠা ক্ষিপ্ত মহিষটি ধরতে ইতোমধ্যেই টাঙ্গাইলের ভুঞাপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে প্রাণিসম্পদের একটি দল

টাঙ্গাইলের ভুঞাপুর উপজেলায় কোরবানির জন্য প্রস্তুতির সময় লাফিয়ে ওঠা ক্ষিপ্ত মহিষটিকে এখন পর্যন্ত ধরতে পারেনি পুলিশ। এদিকে মহিষটির গুঁতোয় এখনো পর্যন্ত ১১ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) সকালে প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত মহিষটিকে ধরতে পারেনি বলে প্রাণিসম্পদের একটি টিম ভুঞাপুরে উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন।

এরআগে, সোমবার (১২ আগস্ট) কোরবানির জন্য প্রস্তুতির সময় লাফিয়ে ওঠা মহিষটিকে সারাদিন রাত চেষ্টা করেও নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি। বর্তমানে ওই মহিষ ভুঞাপুর উপজেলার অলোয়া ইউনিয়নের নিকলা বিলে অবস্থান করছে।

এরআগে সোমবার জেলার ঘাটাইল উপজেলার যুগিহাটি থেকে ভুঞাপুর উপজেলার কাগমারি পাড়ার একটি ধানের চরায় অবস্থা করছিল। 

এবিষয়ে ভুঞাপুর থানার এসআই শামছুল ইসলাম বলেন, “ঈদ উপলক্ষে ঘাটাইলের যুগিহাটি গ্রামের আরিফুল সরকারের বাড়িতে একটি মহিষ কয়েকজন মিলে কোরবানি দেওয়ার জন্য কিনেছিলেন। কোরবানি দেওয়ার সময় হঠাৎ লাফিয়ে ওঠে মহিষটি। পরে সেখানে থাকা বেশ কয়েকজনকে আহত করে মহিষটি ভুঞাপুর উপজেলার কাগমারি পাড়ায় চরে চলে যায়। পরে ওই মহিষটিকে ধরতে সন্ধ্যার দিকে ১ রাউন্ড গুলি ছোঁড়া হয়।এতে মহিষটি সরে গেলে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এরপর হাজারো উৎসুক জনতা চলে আসলে পুনরায় গুলি করা সম্ভব হয়নি। পরে মহিষটি সারারাত পর কাগমারি থেকে অলোয়া ইউনিয়নের নিকলা বিলে চলে আসে।”

তিনি আরো বলেন, “মহিষটিকে ধরতে ঢাকা থেকে প্রাণিসম্পদের একটি টিম ভুঞাপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন। তারা ইতোমধ্যেই কাছাকাছি চলে এসেছেন। তারা ঘটনাস্থলে আসার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।” এছাড়াও এঘটনার পর ওই এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।