• শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৪৭ সকাল

শোক দিবস পালন নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২২

  • প্রকাশিত ০৭:১৯ রাত আগস্ট ১৫, ২০১৯
সংঘর্ষ
প্রতীকী ছবি।

আহতদের মধ্যে ৫ পুলিশ সদস্যও রয়েছেন

জাতীয় শোক দিবস পালন নিয়ে নীলফামারীর জলঢাকায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ৫ পুলিশসহ ২২ জন আহত হয়েছেন। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে ২৬ রাউন্ড টিয়ারসেল রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) রুহুল আমিন এই খবর নিশ্চিত করেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৫ আগষ্ট) সকালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে যাওয়ার সময় সাবেক সাংসদ গোলাম মোস্তফা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আনসার আলী মিন্টু গ্রুপের কর্মী-সমর্থকদের ধাওয়া পাল্টা শুরু হয়। এসময় এলোপাতাড়িভাবে ইট-পাটকেল ছুঁড়তে থাকেন উভয়পক্ষের লোকজন। এতে জলঢাকা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ ২২ জন আহত হন।

খবর পেয়ে এএসপি রুহুল আমিনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ১৩ রাউন্ড টিয়ারশেল ও ১৩ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গোলাম মোস্তফা দাবি করেন, "জলঢাকার বঙ্গবন্ধু চত্বরে জাতির জনকের জীবনী নিয়ে আলোচনা করছিলেন দলের সাবেক উপজেলা সভাপতি আব্দুল মান্নান বিএ। এ সময় বর্তমান উপজেলা সভাপতি আনসার আলীর মিন্টুর নেতৃত্বে দুর্বৃত্তরা লাঠি নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায় আমাদের ওপর। তাদের হামলায় পুলিশসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। মামলার প্রস্ততি চলছে।"

পাল্টা অভিযোগ করে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আনসার আলী মিন্টু বলেন, "পূর্বনির্ধারিত দলীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে শোক র‌্যালি নিয়ে যখন আমরা বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে যাই। এসময় সাবেক এমপি গোলাম মোস্তফা ও আব্দুল মান্নানের নেতৃত্বে আমাদের উপর অতর্তিক হামলা চালানো হয়। তারা জামায়াত শিবিরকে সাথে নিয়ে আমাদের উপর আক্রমণ চালায়। আমরা মামলা দায়ের করবো।"

এএসপি রুহুল আমিন ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "জলঢাকা আওয়ামী লীগের দু'পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনায় আমাদের ৫ পুলিশ সদস্য আহত হন। এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে  আমরা ১৩ রাউন্ড টিয়ারশেল ও ১৩ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করি। পরিবেশ এখন স্বাভাবিক রয়েছে।"