• শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:১৭ দুপুর

চাঁদা না দেওয়ায় যুবককে ধর্ষণ ও ভিডিওধারণ, লজ্জায় আত্মহত্যা

  • প্রকাশিত ০৮:৩৯ রাত আগস্ট ১৯, ২০১৯
আত্মহত্যা
প্রতীকী ছবি

সোমবারের মধ্যে দুই লাখ টাকা চাঁদা না দিলে ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়

চাঁদা না দেওয়ায় গাজীপুরের শ্রীপুরে ধর্ষণের ভিডিও করে সেটি ইউটিউবে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকিতে জামাল উদ্দিন (৪০) নামের এক যুবকের আত্মহত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মৃত জামাল উদ্দিন উপজেলার তেলিহাটি টেপিরবাড়ী গ্রামের মৃত আহাদ আলীর ছেলে। 

জামাল উদ্দিনের ছেলে হৃদয় জানান, সোমবার (১৯ আগস্ট) বেলা ১১টার দিকে নিজ বাড়ির বারান্দার আড়ার সাথে ঝুলে আত্মহত্যা করেন তার বাবা। 

ঘটনায় অভিযুক্তরা হলেন একই এলাকার চাঁন মিয়ার ছেলে সিয়াম, রইছ উদ্দিনের ছেলে সাদেক মিয়া এবং ওই দুইজনের সহযোগী রনি, পিন্টু, সজল, শাওনসহ কমপক্ষে ১০ জন।

নিহতের ছেলে হৃদয় আরো জানান, বেশ কয়েকদিন আগে থেকে অভিযুক্তরা তার বাবার কাছে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেছিল। ওই টাকা না দেওয়ায় গত রবিবার (১৮ আগস্ট) বিকেলে অভিযুক্তরা তার বাবাকে বাড়ি থেকে ডেকে পার্শ্ববর্তী বৃন্দাবন-বাদশাহনগর সরকারি বনে নিয়ে যান। সেখানে তারা (অভিযুক্তরা) তাকে ধর্ষণ ও ঘটনার ভিডিও ফুটেজ ধারণ করেন। পরে তার বাবার কাছে সোমবারের মধ্যে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। অন্যথায় ধারণকৃত ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক ও ইউটিউবে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন তারা। পরে তার বাবা ঘটনাটি স্বজনদের জানান। এরপর সোমবার সকালেই বাবা জামাল উদ্দিন বাড়ির লোকজনকে তার শ্বশুর বাড়ি পাঠিয়ে দেন। দুপুরে তারা জানতে পারেন বাবার মরদেহ বারান্দার আড়ার সাথে ঝুলছে। 

শ্রীপুর থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) নয়ন বলেন, “রবিবারের ঘটনাটি জামাল উদ্দিন তার স্বজন ও এলাকার লোকদেরকে জানিয়েছিলেন। স্থানীয়রাও তাকে থানায় সাধারণ ডায়েরি করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু ডায়েরি করার আগেই তার অপমৃত্যু হয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্তদের এলাকায় পাওয়া যাচ্ছে না। তবে গ্রেপ্তারের জন্য সম্ভাব্য স্থানসমূহে অভিযান চালানো হচ্ছে।”