• বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৮ রাত

মসজিদের ইমামকে গলা কেটে হত্যা

  • প্রকাশিত ০৫:০০ সন্ধ্যা আগস্ট ২২, ২০১৯
হত্যা
প্রতীকী ছবি

হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের মোগরাপাড়া ইউনিয়নের মল্লিক পাড়া গ্রামের এক মসজিদের ইমামকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) ভোরে মসজিদের পাশে ইমামের নিজের শয়ন কক্ষ থেকে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান।

নিহত ইমামের নাম মো. দিদারুল ইসলাম। তিনি মল্লিকপাড়া এলাকার নারায়নদিয়া বায়তুল জালাল জামে মসজিদের ইমাম ছিলেন। খুলনার তেরখাদা থানার রাজাপুর গ্রামে তার বাড়ি। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ২৬ জুলাই উপজেলার মল্লিক পাড়া গ্রামের নারায়নদিয়া বায়তুল জালাল জামে মসজিদে ইমাম হিসেবে যোগদান করেন নিহত দিদারুল। তবে, বৃহস্পতিবার ভোরবেলা ফজরের আজানের সময় মসজিদে উপস্থিত ছিলেন না নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত ইমাম। নামাজ পড়তে আসা মুসল্লিরা মসজিদে ইমামকে না পেয়ে নিজেরাই নামাজ আদায় করেন। নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হওয়ার পথে মুসল্লিরা ইমামের শয়ন কক্ষে ফ্যানের শব্দ শুনে এগিয়ে যান। সেখানে গিয়ে ইমামের গলাকাটা লাশ বিছানায় পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন তারা।

এ প্রসঙ্গে মল্লিকপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আবু সাঈদ বলেন, "বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের সময় ইমামকে না দেখে আমরা ভেবেছিলাম তিনি বাড়িতে গেছেন। নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে ফ্যানের শব্দ শুনে ইমামের ঘরের দিকে এগিয়ে যাই। সেখানে গিয়ে ইমামে গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখি। এ সময় তার ঘরের দরজা বাইরে থেকে আটকানো ছিল।"

হত্যাকাণ্ড প্রসঙ্গে সোনারগাঁও থানার ওসি মনিরুজ্জামান ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "ইমামের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় সোনারগাঁও থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে"।