• শুক্রবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৪৬ বিকেল

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল মাদ্রাসাছাত্রী

  • প্রকাশিত ০১:১০ দুপুর আগস্ট ২৩, ২০১৯
ব্রাহ্মণবাড়িয়া

অভিভাবকদের কাছ থেকে জরিমানা আদায় করার পাশাপাশি ওই ছাত্রী প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দেয়ার মুচলেকা নেয়া হয়েছে 

সদর উপজেলার সাদেকপুর ইউনিয়নের বেপারীপাড়া গ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে শিরিনা খাতুন (১৪) নামে এক মাদ্রাসাছাত্রী।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পঙ্কজ বড়ুয়ার নেতৃত্বে গঠিত ভ্রাম্যমাণ আদালত বৃহস্পতিবার এই বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেন বলে ইউএনবি'র একটি খবরে বলা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সাদেকপুর ইউনিয়নের বেপারীপাড়ার দিলদার হোসেনের মেয়ে ও স্থানীয় একটি আলিয়া মাদ্রাসার নবম শ্রেণির ছাত্রী শিরিনা খাতুনের সঙ্গে একই এলাকার আবদুল আওয়ালের ছেলে দ্বীন ইসলামের বিয়ের আয়োজন চলছিল। এসময় বর দ্বীন ইসলামকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং মেয়ের বাবা দিলদার হোসেন এবং বরের বাবা আবদুল আওয়ালকে ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড দেয়া হয়।

এ প্রসঙ্গে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পঙ্কজ বড়ুয়া বলেন, "জরিমানার পাশাপাশি তাদের কাছ থেকে কনে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দেয়ার মুচলেকা নেয়া হয়েছে। বাল্যবিয়ের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।"