• রবিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৩ রাত

যৌন হয়রানির অভিযোগে পুলিশ কনস্টেবলেকে তরুণীদের জুতাপেটা

  • প্রকাশিত ১১:০৯ সকাল আগস্ট ৩০, ২০১৯
পুলিশ
প্রতীকী ছবি

কনস্টেবল সাব্বির হোসেন ওই নারীর শরীরে হাত দেন

যৌন হয়রানির অভিযোগে রাজশাহী নগরীতে সাব্বির হোসেন (৩০) নামে এক পুলিশ কনস্টেবলকে জুতাপেটা করেছেন কয়েকজন তরুণী। 

বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) রাত ১০টার দিকে রাজশাহী নগরীর লক্ষ্মীপুর কাঁচাবাজার এলাকায় এঘটনা ঘটে। পরে বিক্ষুব্ধ তরুণী ও স্থানীয়দের হাত থেকে অভিযুক্তকে উদ্ধার করে রাজপাড়া থানা পুলিশ।

অভিযুক্ত সাব্বির হোসেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) পবা থানায় কর্মরত ছিলেন। রাতেই তাকে এই থানা থেকে প্রত্যাহার দেখানো হয়েছে। বর্তমানে তাকে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ লাইনে রাখা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সাব্বির হোসেন লক্ষ্মীপুর কাঁচাবাজার এলাকায় একটি বাড়িতে পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকেন। তিনি প্রায় প্রতিদিনই কাঁচাবাজারে বসে নারীদের যৌন হয়রানি করতেন। বৃহস্পতিবার রাতেও তিনি মদ্যপ অবস্থায় এলাকার এক তরুণীকে কটূক্তি করেন। এসময় এক তরুণীর গায়ে হাত দেন বলেও অভিযোগ ওঠে। ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় ওই তরুণী পায়ের জুতা খুলে কনস্টেবল সাব্বিরকে পেটাতে শুরু করেন। এসময় ভুক্তভোগী তরুণীর সঙ্গে যোগ দেন আরো কয়েকজন তরুণী। এগিয়ে আসেন এলাকার লোকজনও। এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধদের হাত থেকে পালিয়ে একটি বাড়িতে ঢুকে পড়েন কিন্তু এলাকার লোকজন বাড়িটি ঘিরে রাখেন। এনিয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়।

খবর পেয়ে রাজপাড়া থানা পুলিশের একটি দল কনস্টেবল সাব্বিরকে বাড়ি থেকে আটক করে নিয়ে যায়। এরপর পরিস্থিতি শান্ত হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ কমিশনার (সদর) গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, “কনস্টেবল সাব্বিরের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠায় তাকে থানা থেকে রাতেই প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

সাব্বিরেরর মদপানের বিষয়ে জানতে চাইলে গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, “তার ব্যাপারে এই বিষয়টি শুনেছি। প্রয়োজনে তার ডোপ টেস্ট করা হবে।”