• বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:১৭ বিকেল

বগুড়ায় চার শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে বৃদ্ধ গ্রেফতার

  • প্রকাশিত ১০:৩৩ রাত সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯
বগুড়া ধর্ষণ
বগুড়ায় ৪ শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার জয়নাল আবেদীন ঢাকা ট্রিবিউন

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে চার শিশুকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে অভিযুক্ত

বগুড়ার ধুনটে খাবারের প্রলোভনে চার শিশুকে ঘরে ডেকে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণের অভিযোগে জয়নাল আবেদীন (৫৫) নামে এক রিকশা চালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে উপজেলার গোপালপুর খাদুলি গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করে ধুনট থানা পুলিশ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে চার শিশুকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে অভিযুক্ত। গত ৬ ও ৮ সেপ্টেম্বর পৃথক ওই ধর্ষণের ঘটনায় দুই শিশুর বাবা থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

শেরপুর ও ধুনট সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, “বুধবার চার শিশুর ডাক্তারি পরীক্ষা ও তাদের আদালতে নিয়ে ২২ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করানো হবে। অভিযুক্ত জয়নাল আবেদীনকেও আদালতে সোপর্দ করা হবে। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি না দিলে রিমান্ডে নিয়ে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।”

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান জানান, ধুনট উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের গোপালপুর খাদুলি গ্রামের মৃত ফজর আলীর ছেলে জয়নাল আবেদীন পেশায় রিকশা ভ্যান চালক। বাড়িতে স্ত্রী ছাড়া আর কেউ থাকে না। বাড়িতে জলপাই গাছ থাকায় প্রতিবেশী শিশুরা জয়নালের বাড়িতে আসতো। কোনো শিশু বাড়িতে এলে সে তাকে জলপাই ও অন্যান্য খাবারের প্রলোভনে ঘরে নিয়ে যৌন হেনস্থা করতো।

একইভাবে গত ৬ ও ৮ সেপ্টেম্বর চার শিশুকে ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে জয়নাল। এদের মধ্যে দুই শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক হয়ে পড়ে। এ ঘটনায় ওই শিশুদের পরিবার ক্ষুব্ধ হয়ে বিষয়টি ধুনট থানায় জানায়, যোগ করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।

মঙ্গলবার বিকেল ৫ টার দিকে পুলিশ জয়নাল আবেদীনকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। 

জিজ্ঞাসাবাদে সে চার শিশুকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। চার শিশুর মধ্যে দু’জনের বাবা মামলা করতে রাজি হয়েছেন। 

মঙ্গলবার বিকালে তারা থানায় এসে পৃথক দুটি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। 

পুলিশের ধারণা, শিশুদের যৌন হেনস্থা করা জয়নালের নেশায় পরিণত হয়েছে। শিশুদের স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে পরীক্ষার পর চিকিৎসক ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।