• রবিবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩০ সকাল

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী: ৯৯৯ সেবা আরও জনপ্রিয় করা হবে

  • প্রকাশিত ০৫:১১ সন্ধ্যা সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। ফাইল ছবি।

‘সেফ সিটি’ প্রকল্প করার পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে। প্রথমে ঢাকা সিটি করপোরেশন ও পরে দেশের অন্যান্য সিটি করপোরেশন এই প্রকল্পের আওতায় আসবে। এই প্রকলল্পের আওতায় ঢাকা শহরে ১৪-১৬ হাজার অত্যাধুনিক ক্যামেরা লাগানো হবে’

সেবাগ্রহণে এপর্যন্ত ১ কোটি ৪২ লাখ মানুষ ৯৯৯-এ কল দিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। দেশের মানুষের মাঝে ডিজিটাল সেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে এসভার আয়োজন করা হয়। সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক ও পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। খবর বাংলা ট্রিবিউন’র।

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, “৯৯৯-এ বর্তমানে জনবল ১৪২ জন। এই জনবল ৫০০-তে উন্নীত করার পরিকল্পনা আছে। এপর্যন্ত যারা ৯৯৯-এ কল দিয়েছেন, তারা সবাই সেবা পেয়েছেন।”

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ২০০৮ সালে শেখ হাসিনার নির্বাচনি প্রতিশ্রুতি ছিল দেশকে ডিজিটালাইজড করা। এরই অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি-বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের পরামর্শে ও দিক নির্দেশনায় ২০১৭ সালে ৯৯৯ সার্ভিস চালু করা হয়।

মন্ত্রী জানান, সভায় ডিজিটাল জিডি (সাধারণ ডায়েরি) ব্যবস্থা প্রবর্তনের জন্য এক সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। আপাতত হারানো সংক্রান্ত জিডি অনলাইনে করা যাবে। পরে বিস্তারিত এই প্রোগ্রামের আওতায় আসবে।

তিনি বলেন, “সেফ সিটি’ প্রকল্প করার পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে। প্রথমে ঢাকা সিটি করপোরেশন ও পরে দেশের অন্যান্য সিটি করপোরেশন এই প্রকল্পের আওতায় আসবে। এই প্রকলল্পের আওতায় ঢাকা শহরে ১৪-১৬ হাজার অত্যাধুনিক ক্যামেরা লাগানো হবে। এর আওতায় ট্রাফিকও নিয়ন্ত্রণ করা হবে। এটি বাস্তবায়ন হলে শহরে অপরাধ কমে যাবে।”