• বুধবার, নভেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৩০ রাত

গাজীপুরে জিরাফ শাবকের জন্মে আশার আলো

  • প্রকাশিত ০৯:০০ রাত অক্টোবর ৬, ২০১৯
জিরাফ
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে একটি পুরুষ জিরাফ শাবকের জন্ম হয়েছে। ঢাকা ট্রিবিউন

দর্শণার্থীদের বিনোদনের জন্য ২০১৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ১০টি জিরাফ আনা হয়

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে একটি পুরুষ জিরাফ শাবকের জন্ম হয়েছে। সম্প্রতি পার্কের একমাত্র পুরুষ জিরাফের মৃত্যুর হয়। তাই নতুন পুরুষ শাবকের জন্ম পার্কে জিরাফের প্রজননে ভূমিকা রাখবে বলে আশার আলো দেখছে পার্ক কর্তৃপক্ষ। 

রোববার (৬ অক্টোবর) জিরাফ শাবকের জন্মের বিষয়টি গণমাধ্যমের সামনে আনে পার্ক কর্তৃপক্ষ। এর আগে গত ২৭ আগস্ট বিকেলে শাবকটির জন্ম হলেও শাবক ও তার মায়ের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে তা গোপন রাখা হয়। বর্তমানে এ শাবক নিয়ে পার্কে জিরাফের সংখ্যা দাঁড়ালো ১১টিতে।

সাফারি পার্কের বন্যপ্রাণী পরিদর্শক সারোয়ার হোসেন খান জানান, দর্শণার্থীদের বিনোদনের জন্য ২০১৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ১০টি জিরাফ আনা হয়। এসব জিরাফ থেকে এই পার্কে এর আগে বেশ কয়েকবার শাবকের জন্ম হয়েছে। তবে অসুস্থ হয়ে কয়েকটি জিরাফের মৃত্যুও হয়েছে। এর মধ্যে গত ১৫ জানুয়ারি পার্কের একমাত্র পুরুষ জিরাফের মৃত্যু হয়। এরপর থেকে জিরাফ পরিবার ছিল পুরুষ শূণ্য। গত ২৭ আগস্ট এই জিরাফ শাবকের জন্ম হলেও নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে তা প্রকাশ করা হয়নি। 

সারোয়ার হোসেন খান আরও জানান, বর্তমানে মা ও শাবক সুস্থ আছে। নতুন শাবকটি মায়ের দুধ পানের পাশাপাশি ঘাসও খাচ্ছে। শাবকের খাদ্য নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে মা জিরাফকে অতিরিক্ত খাবারও দেওয়া হচ্ছে।

জিরাফ মূলত আফ্রিকান তৃণভোজী স্তণ্যপায়ী প্রাণি। বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা প্রাণি হিসেবে জিরাফকে বিবেচনা করা হয়। একটি জিরাফ লম্বায় ১৮ ফুট পর্যন্ত হয়ে থাকে। ওজন হয় ১ হাজার ৫০০ থেকে ৩ হাজার পাউন্ড পর্যন্ত। এদের গলা লম্বা হয় ছয় ফুট পর্যন্ত। জিরাফ হৃদপিণ্ডে ৫৫ লিটার বায়ু ধারণ করতে পারে বলে জানান পার্কের এই কর্মকর্তা। 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তবিবুর রহমান জানান, "জিরাফ বিদেশি প্রাণি হওয়ার পরও পার্ক কর্তৃপক্ষের নিবিড় পর্যবেক্ষণে ফের একটি শাবকের জন্ম হয়েছে। আগে পার্কের একমাত্র পুরুষ জিরাফের মৃত্যুতে আমরা আশাহত হয়েছিলাম। তবে ফের একটি পুরুষ শাবকের জন্ম হওয়ায় আশার আলো দেখা দিয়েছে। নতুন জন্ম নেওয়া শাবকটি যদি সুস্থ অবস্থায় বড় হয় তবে জিরাফের প্রজননে বড় ভূমিকা রাখবে এই শাবকটি।"