• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৮ রাত

'পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায়' স্ত্রীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন-ছুরিকাঘাত

  • প্রকাশিত ০৬:০৪ সন্ধ্যা অক্টোবর ১২, ২০১৯
নারী নির্যাতন
প্রতীকী ছবি

সম্প্রতি প্রতিবেশী এক নারীর সঙ্গে তাজিরুলের পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে ওঠে

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলায় পরকীয়া প্রেমে বাধা দেওয়ায় সীমা আক্তার (২৮) নামের এক গৃহবধূকে ছুরিকাঘাত ও গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। 

শুক্রবার (১১ অক্টোবর) উপজেলার ঘুড়িদহ ইউনিয়নের মথরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এরপর থেকে স্বামী তাজিরুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন। 

খবর পেয়ে ঘুড়িদহ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য নুরুন নবী ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই গৃহবধূর বাঁধন খুলে তাকে উদ্ধার করেন।

ইউপি সদস্য নুরুন নবী জানান, প্রায় ১০ বছর আগে একই উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের মেয়ে সীমা অক্তারের সঙ্গে মথরপাড়া গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে তাজিরুল ইসলামের বিয়ে হয়। তাদের দুটি সন্তান রয়েছে। সম্প্রতি প্রতিবেশী এক নারীর সঙ্গে তাজিরুলের পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এনিয়ে প্রতিবাদ করলে স্ত্রী সীমাকে তার বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেন তিনি। পরে বিষয়টি স্থানীয় সালিশে মীমাংসা হলে সীমাকে আবার বাড়িতে নিয়ে যান তাজিরুল। কিন্তু এর কিছুদিন পর আবারও পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি। 

নুরুন নবী আরও জানান, বিষয়টি নিয়ে গত শুক্রবার বিকেলে সীমা পুলিশে অভিযোগ করার করার হুমকি দেন। তখন তার মুখ চেপে ধরে ছুরিকাঘাত করেন তাজিরুল। এসময় সীমা চিৎকার করলে তাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করা হয়। 

সাঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল হোসেন জানান, বিষয়টি তিনি এখনও শোনেননি। খোঁজ নিয়ে তিনি দ্রুত আইনগত ব্যবস্থার নেওয়া হবে।