• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৮ রাত

বুয়েট: স্থায়ী বহিষ্কার না করা হলে ক্লাস-পরীক্ষায় যাবেন না শিক্ষার্থীরা

  • প্রকাশিত ০৬:৪৩ সন্ধ্যা অক্টোবর ১৫, ২০১৯
বুয়েট
আবরার হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে বুয়েটে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। ছবি: রাজীব ধর/ঢাকা ট্রিবিউন

চার্জশিট হওয়ার পর অভিযুক্তদের স্থায়ী বহিষ্কার না করা পর্যন্ত কোনো একাডেমিক কার্যক্রমে অংশ নেবেন না তারা

গণশপথের মধ্য দিয়ে বুধবার (১৬ অক্টোবর) আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। তবে তারা বলছেন, চার্জশিট হওয়ার পর অভিযুক্তদের স্থায়ী বহিষ্কার না করা পর্যন্ত কোনো একাডেমিক কার্যক্রমে অংশ নেবেন না তারা।

মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) দিনব্যাপী সভা শেষ শিক্ষার্থীরা সাড়ে ৫টার দিকে এই ঘোষণা দেন।

এসময় তারা বলেন, আগামীকাল বুধবার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে গণশপথের মধ্য দিয়ে ক্যাম্পাসে সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িক শক্তিকে রুখে দিতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হবেন তারা। তবে মাঠ পর্যায়ের আন্দোলন স্থগিত করলেও তাদের দাবিসমূহ সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে রাখার কথা বলেছেন তারা।

একইসঙ্গে চার্জশিটে অভিযুক্ত সকলকে যতদিন পর্যন্ত স্থায়ীভাবে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার না করা হয় ততদিন ক্লাস পরীক্ষাসহ যে কোনো ধরনের একাডেমিক কার্যক্রমে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা। বুয়েট শিক্ষার্থীরা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, খুনিদের সঙ্গে একই ক্যাম্পাস ভাগাভাগি করতে পারবেন না তারা।

এসময় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র বলেন, আবরারের লাশকে পর্দা হিসেবে ব্যবহার করে অনেক সংগঠন নিজেদের স্বার্থ হাসিলের চেষ্টা করেছে। তারা এর মাধ্যমে ব্যক্তিগত এজেন্ডা বাস্তবায়ন ও আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে। আমরা সুস্পষ্টভাবে বলে দিতে চাই, এদের সঙ্গে আমাদের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। এসব সংগঠনের কথায় কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানান তারা