• শুক্রবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৬ রাত

রিমান্ড শেষে কারাগারে শিশু তুহিনের বাবা-চাচা

  • প্রকাশিত ১১:০৯ রাত অক্টোবর ১৮, ২০১৯
শিশু তুহিন
নিহত শিশু তুহিন হাসান। সংগৃহীত

শুক্রবার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে অস্বীকৃতি জানালে আদালত তাদের কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে শিশু তুহিন হত্যার ঘটনায় তিন দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বাবা আব্দুল বাছির, চাচা আব্দুল মছব্বির ও জামশেদ মিয়াকে।

শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) তাদের আদালতে হাজির করা হয়। কিন্তু তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে না চাইলে, আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বলে নিশ্চিত করেছেন কোর্ট ইন্সপেক্টর আশেক সুজা মামুন।

এদিকে, সিলেটের ডিআইজি কামরুল হাসান শুক্রবার বিকালে দিরাইয়ের রাজানগর ইউনিয়নের কেজাউরা গ্রামে গিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেছেন। তাদের তিনি আশ্বাস দিয়ে বলেন, "এই মামলায় পুলিশ দ্রুত প্রতিবেদন দাখিল করবে।" এসময় এডিশনাল ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র, সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হায়তুননবী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য,গত ১৩ অক্টোবর রাতে সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে রাতের আঁধারে পাঁচ বছরের শিশু তুহিনকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। ঘাতকরা তার লাশ রাস্তার পাশের একটি গাছের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখে। খবর পেয়ে পরদিন সকালে জেলা পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, সিআইডি ও ডিবি পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের বাবা আব্দুল বাছির ও তার তিন চাচা মাওলানা আব্দুল মোছাব্বির, জমসেদ মিয়া, নাছির, জাকিরুল, চাচি খয়রুন বেগম ও চাচাতো বোন তানিয়াকে থানায় নিয়ে আসা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেই পুলিশ খুনের কারণ ও খুনিদের পরিচয় নিশ্চিত হয়।

এরপর ১৫ অক্টোবর ভোরে তুহিনের মা বাদী হয়ে ১০ জনকে আসামি করে দিরাই থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই দিনই বাবা আব্দুল বাছির, চাচা আব্দুল মছব্বির ও জমশেদ মিয়াকে আদালতে হাজির করা হলে তাদের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।