• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৮ রাত

মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের ওপর হামলা

  • প্রকাশিত ০৩:১২ বিকেল অক্টোবর ২০, ২০১৯
ছাত্রদল
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে রাজীব ধর/ঢাকা ট্রিবিউন

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ‘যারা মধুর ক্যান্টিনে এসে ‘৭৫ এর হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার’ স্লোগান দেয় তাদের অবাঞ্ছিত ঘোষণা করতে দুপুরে মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন ছিল। একপর্যায়ে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা মুক্তিযুদ্ধবিরোধী স্লোগান দিলে আমাদের মঞ্চের নেতা-কর্মীরা তাদের বাধা দেয়’ 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। রবিবার (২০ অক্টোবর) হামলায় চারজন নেতাকর্মী মারাত্মক আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছে ছাত্রদল। 

ছাত্রদলের অভিযোগ, দুপুর সোয়া ১২টার দিকে মধুর ক্যান্টিন থেকে বের হওয়ার পথে তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা। এসময় ছাত্রদলের দুই নারী নেত্রীকে গালিগালাজ করা হয়। একপর্যায়ে ছাত্রদলের নেত্রী কানেতা ইয়া লাম লামকে ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলে দেয় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতারা। মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক আল মামুনের নেতৃত্বে এহামলা হয়। রড, স্ট্যাম্প ও চেয়ার দিয়ে হামলা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

তবে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। হালকা ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী স্লোগান দেওয়া নিয়ে এই ঘটনা ঘটে বলে জানান তিনি।

ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নাসির উদ্দিন নাসিরের অভিযোগ, তারা মধুর ক্যান্টিন থেকে বের হচ্ছিলেন। এসময় অতর্কিতভাবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। এসময় তাদের দুই নারী নেত্রীকে গালিগালাজ করা হয়। তাদের ওপর হামলা চালানো হয়।

হামলায় আহতরা হলেন, জিয়া হলের ভিপি প্রার্থী তারেক হাসান মামুন, যুগ্ম-আহ্বায়ক শাহাজান শাওন, ছাত্রদলের সভাপতি প্রার্থী মামুন খান, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় যুগ্ম-আহ্বায়ক ওবায়দুল্লাহ নাঈম, কানেতা ইয়া লাম লাম, মানসুরা আলম।

ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, “শুনেছি মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ছাত্রদলের হাতা-হাতির ঘটনা ঘটেছে। কোনও ঘটনা ঘটলেই ছাত্রলীগকে দোষারোপ করা ছাত্রদলের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে।”

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, “যারা মধুর ক্যান্টিনে এসে ‘৭৫ এর হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার’ স্লোগান দেয় তাদের অবাঞ্ছিত ঘোষণা করতে আমাদের দুপুরে মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন ছিল। একপর্যায়ে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা মুক্তিযুদ্ধবিরোধী স্লোগান দিলে আমাদের মঞ্চের নেতাকর্মীরা তাদের বাধা দেয়। পরে তা হাতা-হাতিতে পরিণত হয়। কোনও হামলার ঘটনা ঘটেনি।”