• সোমবার, নভেম্বর ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:২৭ দুপুর

দুই শিক্ষার্থীকে ‘স্বপ্নচারী উচ্চশিক্ষা বৃত্তি’ দিলো সায়েম গ্রুপ

  • প্রকাশিত ০৮:২৫ রাত অক্টোবর ৩০, ২০১৯
বৃত্তি
বৃত্তিপ্রাপ্ত দুই শিক্ষার্থী। ছবি: সংগৃহীত

এই বৃত্তির অধীনে স্নাতক পর্যন্ত তাদের পড়াশোনার পূর্ণ খরচ বহন করবে সায়েম গ্রুপ

তৈরি পোষাক প্রতিষ্ঠান সায়েম গ্রুপ তাদের কারখানা কর্মীদের দু’জন মেধাবী সন্তানকে “স্বপ্নচারী উচ্চশিক্ষা বৃত্তি-২০১৯” প্রদান করেছে।

সম্প্রতি কারখানার কর্মীদের সন্তানদের মধ্যে একটি প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে বৃত্তি প্রদানের জন্য দু’জনকে মেধাবীকে বেছে নেওয়া হয়। এই বৃত্তির অধীনে স্নাতক পর্যন্ত তাদের পড়াশোনার পূর্ণ খরচ বহন করবে সায়েম গ্রুপ।

বৃত্তিপ্রাপ্ত দু’জন হলেন কারখানার স্টোরকিপার আসাদুল ইসলাম আসাদের ছেলে মো. মাহফুজুর রহমান রনি ও ডিস্ট্রিবিউটরহাবিল উদ্দিন খানের ছেলে নাঈম খান। তারা উভয়েই নবম শ্রেণির ছাত্র।

“স্বপ্নচারী- উচ্চশিক্ষা বৃত্তি” প্রকল্পের বৃত্তি কমিটির সমন্বয়ক খন্দকার গালিব সাত্তার জানান, সায়েম গ্রুপ থেকে এ বছর বৃত্তিপ্রাপ্ত দু’জনের স্নাতক পর্যন্ত সকল প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাব্যয় কোম্পানিটি বহন করবে। একইসঙ্গে স্নাতক পাস করার পর এক বছরের প্রশাসনিক ইন্টার্নশিপ অফার করবে কোম্পানিটি। এই সময়ে কর্মক্ষেত্রে তার পারফরম্যান্স ভালো হলে তাকে স্থায়ী চাকরিও দেওয়া হবে।

এদিকে বৃত্তি পেয়ে উভয় শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। একইসঙ্গে বৃত্তিপ্রাপ্ত দুই শিক্ষার্থী লেখাপড়ায় আরও মনোযোগী হওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

বৃত্তি বিতরণী অনুষ্ঠানে সায়েম গ্রুপের পরিচালক আবরার হোসেন বলেন, “আমাদের কোম্পানির দুজন কর্মীর সন্তানকে উচ্চশিক্ষা বৃত্তি প্রদান করতে পেরে আমরা আনন্দিত। আশাকরি তারা তাদের ভালো ফলাফল অব্যাহত রেখে নিজেদের ও পরিবারের ভাগ্য পরিবর্তন করবে এবং ভবিষ্যতে একইভাবে মানুষের পাশে দাঁড়াবে।”

এ সময় তিনি প্রতি বছর এই বৃত্তি প্রদান করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

খন্দকার গালিব সাত্তার বলেন, “আমরা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মেধাবী শিক্ষার্থীদের বের করে আনতে এই প্রকল্পটি শুরু করি। সায়েম গ্রুপকে ধন্যবাদ আমাদের সার্বিক সহায়তা ও বৃত্তি প্রদান করার জন্য। আমরা আশাকরি সায়েম গ্রুপের এমন কাজে উদ্ভুদ্ধ হয়ে অন্যান্য কারখানাগুলোও এমন বৃত্তি প্রদান করবে এবং সবাই মিলে আমরা মেধাবীদের এগিয়ে যেতে সহায়তা করতে পারব।”

এদিকে বৃত্তিপ্রাপ্তদের লেখাপড়া সংক্রান্ত বিষয়াদি পর্যবেক্ষণ ছাড়াও দক্ষতা উন্নয়নে নেতৃত্ব ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বলেও জানায় বৃত্তি কমিটি।

প্রসঙ্গত, ওয়ান পার্সেন্ট ফাউন্ডেশনের “স্বপ্নচারী- উচ্চশিক্ষা বৃত্তি” প্রকল্প দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থী বাছাই করে তাদের উচ্চশিক্ষা বৃত্তি প্রদান ও বৃত্তি প্রদানে দাতাদের উদ্ভুদ্ধ করে। বর্তমানে “স্বপ্নচারী প্রকল্পটির” বিভিন্ন তৈরি পোষাক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পার্টনারশিপ রয়েছে।