• সোমবার, নভেম্বর ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৫৩ দুপুর

নারী শ্রমিককে চাকরির প্রলোভনে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ২

  • প্রকাশিত ০৫:৫৩ সন্ধ্যা নভেম্বর ৬, ২০১৯
গণধর্ষণ
প্রতীকী ছবি।

বুধবার ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে দুইজনকে আটকের পর আদালতে পাঠায় পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে বড় রাঙ্গামাটিয়া এলাকার একটি বাড়িতে এঘটনা ঘটে

সাভারের আশুলিয়ায় এক নারী শ্রমিককে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। 

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে বড় রাঙ্গামাটিয়া এলাকার একটি বাড়িতে এঘটনা ঘটে। বুধবার ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে দুইজনকে গ্রেফতারের পর আদালতে পাঠায় পুলিশ। আটককৃতরা হচ্ছে, আশুলিয়া বড় রাঙ্গামাটিয়া গ্রামের মাইন উদ্দিনের ছেলে মিজানুর রহমান (৩০) ও ধামরাই থানার কামারপাড়া গ্রামের বদর উদ্দিনে ছেলে দেলোয়ার হোসেন (৩০)।

ধর্ষণের শিকার নারীর পরিবার ও পুলিশ জানায়, নাটোর জেলার গুরুদাসপুর থানার নয়াবাজার গ্রামের ইউসুফ আলী তার স্ত্রীকে নিয়ে আশুলিয়া বড় রাঙ্গামাটি এলাকার একটি ভাড়াবাড়িতে থাকেন। তিনি স্থানীয় পোশাক কারখানায় কাজ করলেও তার স্ত্রী গত ৫ মাস ধরে কর্মহীন ছিলেন। একারণে তিনি বিভিন্ন জায়গায় চাকরি খুঁজছিলেন।

গত ৫ নভেম্বর বেলা ১১টার দিকে চাকরি দেওয়ার কথা বলে সোহেল (৩০) নামের স্থানীয় এক যুবক তাকে ডেকে পাশের বাড়ির একটি কক্ষে নিয়ে যায়।ওই কক্ষে বাড়ির মালিকের ছেলে মিজান, দেলোয়ার ও আ: রাজ্জাকসহ তিনজন আগে থেকেই ছিলো। মিজানের কক্ষে ওই নারী প্রবেশ করার পরই সোহেল দরজা বাইরে থেকে আটকে দিয়ে চলে যায়। এরপর রাজ্জাক, মিজান ও দেলায়ার তার ওপর পাশবিক নির্যাতন চালায়। পরে এঘটনা কাউকে জানালে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে ওই নারীকে ছেড়ে দেওয়া হয় ।

এদিকে, বাড়িতে এসে ওই নারী তার পরিবারের কাছে বিষয়টি জানায় । পরে আশুলিয়া থানা পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে দুইজনকে আটক করে । 

বিষয়টি নিশ্চিত করে আশুলিয়া থানার (ওসি তদন্ত) জাবেদ মাসুদ বলেন, ওই নারী শ্রমিককে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত চারজনের মধ্যে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে।