• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৮ রাত

ডা. জাফরুল্লাহ, নঈম নিজাম ও পীর হাবিবের বিরুদ্ধে মামলা

  • প্রকাশিত ০৩:৩৪ বিকেল নভেম্বর ৭, ২০১৯
ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী
ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর ফাইল ছবি। ঢাকা ট্রিবিউন

‘প্রকাশিত কলামে উল্লেখ করা রয়েছে, প্রাচীন ভারতে গো-হত্যা ছিল। প্রাচীনকাল থেকে ভারতে গো-হত্যা ও গো-মাংস আহারের ব্যাপক প্রচলন ছিলউচ্চ ও নিম্নবর্ণের হিন্দুদের বাড়িতে, সব ধর্মীয় অনুষ্ঠানে, ব্রাহ্মণ তুষ্টিতে’

“মুসলমানরা গরু খাওয়া শিখলো কীভাবে” শিরোনামে একটি কলাম বাংলাদেশ প্রতিদিনে প্রকাশিত হওয়ায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলায় অপর দুই আসামি হলেন, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম ও নির্বাহী সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরীর আদালতে এ মামলা করেন বাংলাদেশ মাইনরিটি জনতা পার্টির সাধারণ সম্পাদক (বিএমজেপি) গৌতম কুমার এদবর। বাদী পক্ষে আইনজীবী ছিলেন শুভ্রত বিশ্বাস শুভ্র ও সুমন কুমার। খবর বাংলা ট্রিবিউনের।

আইনজীবী শুভ্রত বিশ্বাস শুভ্র বলেন, “হিন্দু ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে কলাম প্রকাশিত হওয়ায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ২৯৫ (ক)/ ৩৪ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “আদালত বাদীর জবানবন্দি রেকর্ড করে আদেশ পরে দেবেন বলে জানান।”

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২৬ অক্টোবর বাংলাদেশ প্রতিদিনে “মুসলমানরা গরু খাওয়া শিখলো কীভাবে” এ শিরোনামে কলাম প্রকাশিত হয়। এ কলাম লিখেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। অভিযোগে বলা হয়, “অভিযুক্তরা উদ্দেশ্যমূলকভাবে বাংলাদেশের আড়াই কোটি সনাতন ধর্মাবলম্বীসহ বিশ্বের একশ কোটির বেশি সনাতন ধর্মাবলম্বীর ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার উদ্দেশ্যে এমন কলাম প্রকাশ করেন। প্রকাশিত কলামে উল্লেখ করা রয়েছে, প্রাচীন ভারতে গো-হত্যা ছিল। প্রাচীনকাল থেকে ভারতে গো-হত্যা ও গো-মাংস আহারের ব্যাপক প্রচলন ছিলউচ্চ ও নিম্নবর্ণের হিন্দুদের বাড়িতে, সব ধর্মীয় অনুষ্ঠানে, ব্রাহ্মণ তুষ্টিতে।”