• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৮ রাত

ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার জনগণকে আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার নির্দেশ

  • প্রকাশিত ০৪:২৮ বিকেল নভেম্বর ৯, ২০১৯
ঘূর্ণিঝড় বুলবুল সতর্কতা
বরগুনায় ঘূর্ণিঝড় 'বুলবুল'-এর ক্ষতি থেকে জনগণকে বাঁচাতে মাইকিং করছেন দুই স্বেচ্ছাসেবী। ঢাকা ট্রিবিউন

জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে দুর্গম এলাকা থেকে জনগণকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনার জন্য নৌকা, ট্রলারসহ প্রয়োজনীয় যানবাহনের ব্যবস্থা করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে

ঘূর্ণিঝড় ‘‘বুলবুল’’-এ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার সব মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার নির্দেশনা দিয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান জানিয়েছেন, এ ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

বার্তা সংস্থা ইউএনবির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শনিবার (৯ নভেম্বর) সচিবালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রতিমন্ত্রী জানান, শনিবার বিকেলে উপকূল অতিক্রম করতে যাওয়া ‘‘ঘূর্ণিঝড় বুলবুল’’ এর ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট ১৩টি উপকূলীয় জেলায় কর্মরত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

সেইসঙ্গে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর ও সিপিপির সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর তিন দিনের ছুটি বাতিল করা হয়েছে, বলেন তিনি।


আরও পড়ুন - জেনে নিন আবহাওয়ার ১ থেকে ১১ নম্বর সংকেত


প্রতিমন্ত্রী বলেন, উপকুলীয় অঞ্চলের মানুষজন ও তাদের গবাদিপশু যেন নিরাপদে ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে পারে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

সব জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে দুর্গম এলাকা থেকে জনগণকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনার জন্য নৌকা, ট্রলারসহ প্রয়োজনীয় যানবাহনের ব্যবস্থা করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, জানান প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান।


আরও পড়ুন - জেনে নিন আবহাওয়ার ১ থেকে ১১ নম্বর সংকেত


প্রতিমন্ত্রী বলেন, ৪১টি উপজেলার মোট ৫৫ হাজার ৫১৫ জন স্বেচ্ছাসেবক ঘূর্ণিঝড়ের আগাম সতর্ক বার্তা প্রচার করছে। এছাড়াও যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় সশস্ত্র বাহিনীকে প্রস্তুত থাকা ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।