• বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৫:০৬ সন্ধ্যা

ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসব-এর ৫ম আসর ১৬ ফেব্রুয়ারি

  • প্রকাশিত ০৭:৫১ রাত ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৯
‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল’(ডিআইএমএফএফ, DIMFF)

ইউল্যাবে আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করছে বিশ্বের ৩৪টি দেশের ৯৫টি চলচ্চিত্র

রাজধানীর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ-এ ৫ম বারের মতো আয়োজিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের সর্বপ্রথম মুঠোফোন কেন্দ্রিক চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রতিযোগিতা ‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল’(ডিআইএমএফএফ, DIMFF)। বিশ্ববিদ্যালয়টির স্থায়ী ক্যাম্পাসে আগামী ১৫ এবং ১৬ই ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এই আয়োজনটি সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। 

প্রতিযোগিতার এই আসরে থাকছে ভারত, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, কানাডা, স্পেন, ফিলিপাইন, ব্রাজিল, চীন, জার্মানি, আফগানিস্তান, নেপাল, শ্রীলংকা, সুইডেন-সহ বিশ্বের ৩৪টি দেশ থেকে নির্বাচিত চলচ্চিত্র। নির্বাচিত চলচ্চিত্রগুলোকে যথাক্রমে ‘কম্পিটিশন' (Competition) , ‘ওয়ান মিনিট ফিল্ম' (One minute film) এবং ‘স্ক্রিনিং' (Screening) এই তিনটি বিভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য সারা বিশ্ব থেকে জমা হয়েছে সর্বমোট ৯৫টি চলচ্চিত্র। 

ডিআইএমএফএফ-এর ৫ম আসরে বিচারকার্য সম্পন্ন করেছেন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রসূন রহমান, প্রথিতযশা সিনেমাটোগ্রাফার রাশেদ জামান এবং চলচ্চিত্র বিষয়ক প্রবন্ধ লেখক বিধান রিবেরু।

চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে প্রসূন রহমানের পথচলা শুরু হয় ‘সুতপার ঠিকানা’ নামের চলচ্চিত্রটির মাধ্যমে। চলচ্চিত্র নির্মাতার পাশাপাশি একজন জনপ্রিয় লেখকও তিনি। 

প্রতিযোগিতার অপর বিচারক রাশেদ জামান সিনেমাটোগ্রাফিকে পেশা হিসেবে বেছে নিলেও তার শিক্ষাজীবন শুরু হয় স্থাপত্যশিল্পের আচ্ছাদনে। 

ডিআইএমএফএফ-এর আরেকজন সম্মানিত বিচারক, বিধান রিবেরু বর্তমানে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন চলচ্চিত্র কেন্দ্রিক লেখালেখিতে। তার লেখা সর্বপ্রথম চলচ্চিত্র বিষয়ক প্রবন্ধ ‘বাংলাদেশের চলচ্চিত্র’ প্রকাশিত হয় কলকাতা থেকে। 

বিচারকমণ্ডলীর নির্বাচনে কম্পিটিশন বিভাগে জমাকৃত ২৮টি চলচ্চিত্র থেকে ১০টি, ওয়ান মিনিট ফিল্ম বিভাগের ৩টি চলচ্চিত্র থেকে ২টি এবং স্ক্রিনিং বিভাগে জমাকৃত ৬৪ টি চলচ্চিত্র থেকে ২৬টি চলচ্চিত্র চূড়ান্ত ভাবে নির্বাচিত হয়েছে। নির্বাচিত চলচ্চিত্রগুলো থেকে  'কম্পিটিশন' বিভাগে সেরা চলচ্চিত্র নির্মাতাদের ‘CinemaScope Best Film’ অ্যাওয়ার্ড এবং 'ওয়ান মিনিট' বিভাগে সেরা চলচ্চিত্রকে ‘ULAB Young Film Maker’ অ্যাওয়ার্ড-এ পুরস্কৃত করা হবে। এছাড়া নির্বাচিত সকল নির্মাতাদের সনদপত্র এবং উপহার দিয়ে সম্মানিত করা হবে।