• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৪১ রাত

তনুশ্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ থেকে নানা পাটেকারের মুক্তি

  • প্রকাশিত ০৫:৩৫ সন্ধ্যা জুন ১৫, ২০১৯
তনুশ্রী নানা
ছবি: সংগৃহীত

অন্তরঙ্গ দৃশ্যে অভিনয় করতে অস্বীকৃতি জানানোর পর পাটেকার তাকে হুমকি দিয়েছিলেন বলে তনুশ্রী দত্ত অভিযোগ করেন। সে সময় তার বয়স ছিল ২৪ বছর।

যৌন হয়রানির অভিযোগ থেকে মুক্তি পেয়েছেন বলিউড অভিনেতা নানা পাটেকার। ভারতীয় পুলিশ বলছে নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তদন্ত করতে গিয়ে ‘পর্যাপ্ত প্রমাণ’ পাওয়া যায়নি।

বিবিসি জানিয়েছে, ২০০৮ সালে একটি চলচ্চিত্রের সেটে নানা পাটেকার তাকে যৌন হয়রানি করেছিলেন বলে অভিযোগ করেছিলেন বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত।

তবে বরাবরই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিলেন পাটেকার। ২০১৮ সালে ভারতে ‘মি টু’ আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে পাটেকারের বিরুদ্ধে অভিযোগটি আবারও সামনে আসে।

নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে নতুন করে মামলা করেন তনুশ্রী দত্ত।

তনুশ্রীর অভিযোগ, একটি গানের ভেতরে অন্তরঙ্গ দৃশ্য অন্তর্ভুক্ত করার জন্য পাটেকার জোর করেছিলেন। যা তার কাছে অস্বস্তিকর ছিল।

সে ঘটনার পরই তিনি অভিনয় ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছেন বলে দাবি তনুশ্রীর।

অন্তরঙ্গ দৃশ্যে অভিনয় করতে অস্বীকৃতি জানানোর পর পাটেকার তাকে হুমকি দিয়েছিলেন বলে তনুশ্রী দত্ত অভিযোগ করেন। সে সময় তার বয়স ছিল ২৪ বছর।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে নানা পাটেকার বলেন, “যৌন হয়রানি বলতে সে কী বোঝাতে চাচ্ছে? আমরা যে সেটে কাজ করছিলাম তার সামনে ২০০ মানুষ বসা ছিল।”

তনুশ্রী দত্ত যে অভিযোগ তোলেন সেটির একটি অংশকে সমর্থন জানিয়ে টুইট করেছেন অন্তত দুইজন নারী।

কিন্তু মুম্বাই পুলিশ বলছে, তনুশ্রী দত্তের অভিযোগের পক্ষে তারা কোনো প্রমাণ পায়নি।

সেজন্য এ তদন্ত চালিয়ে অপারগতা প্রকাশ করেছে পুলিশ।

২০১৮ সালে বিবিসির রেডিও ওয়ানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তনুশ্রী দত্ত বলেন, “আমার জন্য এটা ছিল ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা কারণ, সে (নানা পাটেকার) আমার পুরো শরীরে হাত দিয়েছে।”

এই ঘটনার প্রতিবাদে তনুশ্রী দত্ত সেট থেকে বেরিয়ে যাবার পর তাকে ‘অপেশাদার’, ‘পাগল’, ‘ড্রামা কুইন’ - এসব আখ্যা দেওয়া হয়েছিল।

এদিকে, মামলাটি পুনরায় চালু করার জন্য মুম্বাই হাইকোর্টে আবেদন করা হবে বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী।