• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:১৭ বিকেল

এনগেজমেন্টের পর ভেঙে যায় রবি শাস্ত্রী-অমৃতা সিংয়ের প্রেম!

  • প্রকাশিত ০৬:৩৭ সন্ধ্যা অক্টোবর ২৩, ২০১৯
রবি শাস্ত্রী-অমৃতা সিং
১৯৮৬ সালে ভারতের একটি জনপ্রিয় ফিল্ম পত্রিকার প্রচ্ছদে দু’জনের অন্তরঙ্গ ছবি দেখা যায়। ছবি: সংগৃহীত

১৯৮৬ সালে ভারতের একটি জনপ্রিয় ফিল্ম পত্রিকার প্রচ্ছদে দু’জনের অন্তরঙ্গ ছবি দেখা যায়। এরপরই জনসমক্ষে আসে তাদের প্রেম

১৯৮১ সালে টেস্ট ও ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হয় রবি শাস্ত্রীর। আশির দশক তার ক্যারিয়ারের স্বর্ণযুগ। অন্যদিকে, সেসময় বলিউডে দাপটের সঙ্গে অভিনয় করছেন অমৃতা সিং।

বেশ কয়েক বছর তাদের প্রেম গোপন ছিল। পরে তা প্রকাশ্যে আসে ১৯৮৬ সালে। সেবছর ভারতের একটি জনপ্রিয় ফিল্ম পত্রিকার প্রচ্ছদে দু’জনের অন্তরঙ্গ ছবি দেখা যায়। জনসমক্ষে আসে তাদের সম্পর্ক।

ক্রিকেট ও বিনোদন, দুই মহলই নিশ্চিত ছিল তাদের বিয়ে নিয়ে। এমনকী তাদের নাকি এনগেজমেন্টও হয়ে গিয়েছিলো কিন্তু এরপরেও ভেঙে যায় তাদের সম্পর্ক। এক প্রতিবেদনে এখবর জানিয়েছে আনন্দবাজার।

কেন ভেঙে গেল রবি শাস্ত্রী-অমৃতা সিংয়ের প্রেম? 

তাদের সম্পর্ক ভাঙার আগে এক সাক্ষাৎকারে রবি শাস্ত্রী জানিয়েছিলেন, তিনি চান তার স্ত্রী গৃহবধূ হবেন। ব্যস্ত থাকবেন শুধুই ঘর-সংসার নিয়ে।

অন্যদিকে অমৃতা জানিয়েছিলেন, তিনি সেই মুহূর্তে ক্যারিয়ার নিয়ে খুবই ব্যস্ত রয়েছেন। তবে আরও কয়েক বছর পরে গৃহবধূ হয়ে যেতে তার আপত্তি নেই। ধারণা করা হয়, এই কারণেই ভেঙে গিয়েছিল রবি শাস্ত্রী ও অমৃতার সম্পর্ক।

পরবর্তীতে, অমৃতার সঙ্গে সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে এসে ১৯৯০ সালে রবি শাস্ত্রী বিয়ে করেন ঋতু সিংকে। আর তারপরের বছরই বয়সে ১২ বছরের ছোট সইফ আলি খানের গলায় মালা দেন অমৃতা।