• রবিবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩০ সকাল

১৬ বছরে ১০ হাজার সাপ ধরেছেন থাই দমকলকর্মী!

  • প্রকাশিত ১০:০৬ রাত সেপ্টেম্বর ২, ২০১৯
সাপ
১৬বছরে ১০ হাজার সাপ ধরেছেন থাই দমকলকর্মী পিনিও পুকপিনিও৷ছবি: রয়টার্স

প্রতিবছর সর্বোচ্চ আটশোর মতো সাপ ধরেন পুকপিনিও৷ এরমধ্যে ৭০ ভাগ অবিষধর অজগর সাপ৷ বাকিগুলো কোবরাসহ অন্যান্য বিষধর সাপ

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের দমকল কর্মী পিনিও পুকপিনিও৷ তবে,  আগুন নেভানোর চেয়ে সাপ ধরার কাজেই বেশি ব্যস্ত থাকেন তিনি৷

ব্যাংককের দুর্যোগপ্রতিরোধ মন্ত্রণালয় জানায়, ২০১৮ সালে ব্যাংককের বাসাবাড়িতে প্রায় ৩৮ হাজার সাপ ঢোকার ঘটনা ঘটে৷ বর্ষামৌসুমে খাবারের সন্ধানে বাড়ির বাগান কিংবা টয়লেটে প্রায়ই সাপ ঢুকে পড়ে৷

ব্যাংককের দমকল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গত কয়েকমাস ধরে বাসাবাড়িতে দিনে একশোর বেশি সাপ ঢুকে পড়ার খবর পান তারা৷

ব্যাংককের এক দমকল অফিসে কাজ করেন পিনিও পুকপিনিও৷ গত ১৬ বছরে বিভিন্ন বাসাবাড়ি থেকে তিনি প্রায় ১০ হাজার সাপ ধরেছেন বলে জানান তিনি৷ তিনি যে দমকল অফিসে কাজ করেন সেখানে সাপ থেকে বাঁচতে সহায়তা চেয়ে বছরে প্রায় তিন হাজার টেলিফোন কল আসে বলে জানান পাকপিনিয়ো৷ 

বছরে সর্বোচ্চ আটশোর মতো সাপ ধরেন পুকপিনিও৷ এরমধ্যে ৭০ ভাগ বিষধর নয়, এমন অজগর সাপ৷ বাকিগুলো কোবরাসহ অন্যান্য বিষধর সাপ৷

বিষধর সাপ ধরার পর সেগুলো বিভিন্ন ইন্সটিটিউটে পাঠিয়ে দেওয়া হয়৷ সেখানে বিশেষজ্ঞরা সাপ থেকে বিষ বের করে প্রতিষেধক তৈরি করেন৷

দমকল অফিসে যখন কিছুটা অবসর পান তখন পুকপিনিও খাঁচায় থাকা সাপদের দেখাশোনা করেন৷ তাদের খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করেন৷ এছাড়া সাপ কীভাবে সতর্কতার সাথে নিয়ন্ত্রণ করা যায় সেবিষয়ে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন তিনি৷

পুকপিনিও বলেন, ‘‘একাজের জন্য আমার নিজেকে সুপারহিরো মনে হয়৷ বিপদে পড়া মানুষকে আমি সহায়তা করি৷ এই কাজ করে আমি ভীষণ খুশি৷”